সহপাঠী আইনজীবির বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী মনির হোসেন সহপাঠী মহসিনা মেধা’র বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলার প্রস্তুতি নিয়েছেন।

মনির হোসেন এর স্ত্রী’র নামে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে তার কাছেই অনেক কু-মন্তব্য করেন মহসিনা মেধা। অনেক কুরুচিপূর্ণ অভিযোগও মনিরকে জানান মেধা। এদিকে মনিরের স্ত্রী আলো’র কাছেও মনিরের নামে অনেক অসংলগ্ন কথাবার্তা বলে পারিবারিক অশান্তি সৃষ্টি করেছেন মেধা।

মনির হোসেনের দাবি তার কাছে উপযুক্ত প্রমাণ সরবরাহ না করেই ঢালাওভাবে অভিযোগ করেছেন মেধা। এদিকে মেধার সাথে যোগাযোগ করে জানা যায় তার কাছে মনিরের স্ত্রী আলোর বিপক্ষে এখন কোন প্রমাণ নেই।
মেধাকে মনিরের পক্ষ থেকে দুদিনের সময় দেয়া হলেও এর মধ্যে কোন ধরনের যোগাযোগ করেননি মেধা তাই আগামিকাল ১৩ আগস্ট মামলা করবেন বলে জানান মনির হোসেন।

রংপুরের মেয়ে মহসিনা মেধা ও মানিকগঞ্জ নিবাসী মনির হোসেন দুজনই পেশায় শিক্ষানবিস আইনজীবি। তারা একসাথে গণ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি কোর্স সম্পন্ন করেছেন। মামলার কথা বললে মেধা জানান, মামলা ভয় পাইনা। তবে আমার সংসারেও এ বিষয় নিয়ে অনেক ঝামেলা হয়েছে। তাই আমি এ বিষয়ে আর এগোতে চাইনা।

কিন্তু মেধার ব্যবহারে মনির অনেক চটে আছেন, তিনি বলেন, আমাদের সংসার বা আমার বৌকে নিয়ে মন্তব্য করার তো সে(মেধা) কেউ না। তবু কেন আমার আর আমার বৌয়ের পিছনে সে লেগেছে জানিনা। মেধার সাথে যোগাযোগ করতে পারিনি আমি।
গত শুক্রবার(১০ আগস্ট) মেধা জানান মনিরের সাথে যোগাযোগ করে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি শেষ করে নিবেন। কিন্তু মেধার পক্ষ থেকে কোন প্রকার যোগাযোগ না করায় মানিকগঞ্জ জেলা আদালতে মনির নিজে বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
মেধার ফোন নাম্বার বন্ধ থাকায় আমি আমার বেশ কয়েকজন সহপাঠীর সাথে কথা বলেও তার সাথে যোগাযোগ করতে পারিনি বলেন, মনির। মনির হোসেন তার সাথে এবং আলোর সাথে মেধার কথা-বার্তার বেশ কিছু স্ক্রিনশট দেখান। তাতে এমনসব ভাষা ব্যবহার করেছেন মেধা যা পত্রিকায় প্রকাশের অযোগ্য।
আলো’কেও মেধা এর আগে হুমকি দিয়েছেন যে, নবীনগর(সাভার) আয় তোকে দেখে নিব। তবে মেধার সংসারের প্রতি সম্মান দেখিয়ে মনির বলেন, মামলা করার আগমূহুর্ত পর্যন্ত মেধা যদি আলো এবং আমার সাথে যোগাযোগ করে পারস্পরিক বোঝাপড়া করে নেন তাহলে মামলার পথ থেকে সরে আসবেন তিনি।

মনির হোসেন গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি গবিসাসের প্রাক্তন সভাপতি এবং বর্তমান কমিটির উপদেষ্টা। তাকে এমন অপদস্ত করার ঘটনায় গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক নেতারা তীব্র নিন্দা এবং অভিযুক্তের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

পছন্দের আরো পোস্ট