ঢাবি সামাজিক বিজ্ঞানের ভারপ্রাপ্ত ডিন সাদেকা হালিম

বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় দুই দিন আগে তাকে এ পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বলে সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক এএসএম মাকসুদ কামাল জানিয়েছেন।

শিক্ষক সমিতির সভাপতি মাকসুদ কামাল বৃহস্পতিবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি অনুযায়ী ৯০ দিন বা পরবর্তী ডিন নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত তিনি দায়িত্ব পালন করবেন।”

একাধিক সিন্ডিকেট সদস্য জানিয়েছেন, গত ২ জুলাই একইভাবে ভারপ্রাপ্ত ডিন হিসেবে নিয়োগ পান টেলিভিশন, ফিল্ম ও ফটোগ্রাফি বিভাগের অধ্যাপক এজেএম শফিউল আলম ভূঁইয়া। ২৯ সেপ্টেম্বর তার ৯০ দিনের মেয়াদ শেষ হলে পরদিন দায়িত্ব গ্রহণ করবেন অধ্যাপক সাদেকা।

ঢাকার উদয়ন বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করা সাদেকা হালিম উচ্চ মাধ্যমিকে পড়েন রাজধানীর হলিক্রস স্কুল অ্যান্ড কলেজে।পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণিতে দ্বিতীয় হয়ে স্নাতক এবং প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হয়ে স্নাতকোত্তর পাস করেন তিনি।

১৯৮৮ সালের অগাস্টে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পাওয়া সাদেকা হালিম পরবর্তীতে কমনওয়েলথ বৃত্তি নিয়ে পড়তে যান কানাডার ম্যাকগিল ইউনিভার্সিতে। সেখান থেকে দ্বিতীয় মাস্টার্স ও পিএইচডি ডিগ্রি নেন তিনি। এরপর সাদেকা হালিম কমনওয়েলথ স্টাফ ফেলোশিপ নিয়ে পোস্ট-ডক্টরেট করেছেন যুক্তরাজ্যের বাথ ইউনিভার্সিটি থেকে।

২০০৯ সালের জুলাই থেকে ২০১৪ সালের জুন পর্যন্ত তথ্য কমিশনে প্রথম নারী তথ্য কমিশনার পদে প্রেষণে দায়িত্ব পালন করেন সাদেকা হালিম। ২০০৪ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করা এই অধ্যাপক তিন মেয়াদে শিক্ষক সমিতির কার্যকরী পরিষদের সদস্য ও তিনবার সিনেট সদস্য ছিলেন। অধ্যাপক সাদেকা হালিম জাতীয় শিক্ষানীতি কমিটি-২০০৯ এর ১৮ জন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদের কমিটিতে সদস্য ছিলেন।

পেশাগত জীবনে সাদেকা হালিম অতিথি অধ্যাপক হিসেবে অস্ট্রিয়ার ভিয়েনার বকু বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজ করেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন স্টাডিজ বিভাগ ও আয়ারল্যান্ডের বেলফাস্টের কুইন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের হায়ার এডুকেশন লিংক প্রোগ্রামের অধীনে কুইন্স-এর ভিজিটিং ফেলো ছিলেন কিছুদিন।

জাতীয় ও আন্তর্জাতিক জার্নালে তার লেখা প্রায় ৫০টি গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। লিঙ্গ-সমতা, বন ও ভূমি, উন্নয়ন, আদিবাসী ইস্যু, মানবাধিকার এবং তথ্য অধিকার প্রভৃতি তার গবেষণার বিষয়। অধ্যাপক সাদেকার বাবা অধ্যাপক ফজলুল হালিম চৌধুরী ১৯৭৬ থেকে ১৯৮৩ সময়ে প্রায় সাত বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ছিলেন।

পছন্দের আরো পোস্ট