‘হাই স্কুল থেকে কলেজে পদার্পণ: চ্যালেঞ্জ ও করণীয়সমূহ’ শীর্ষক সেমিনার

একমাত্র ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবক এই ত্রি-মাত্রিক সম্পর্কের শক্তিশালী ও দৃঢ় বন্ধনের মাধ্যমেই উন্নত জীবন ও ক্যারিয়ার গড়ে তোলা সম্ভব এবং সে কারণেই শিক্ষার্থীদের নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ উন্নয়নে এ ত্রি-মাত্রিক সম্পর্ককে আরো দৃঢ় করার আহ্বান জানিয়েছেন ড্যাফোডিল গ্রুপের চেয়ারম্যান মোঃ সবুর খান।

তিনি আরো বলেন, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল কলেজের মূল লক্ষ্য হচ্ছে আধূনিক শিক্ষায় শিক্ষিত, তথ্যপ্রযুক্তি জ্ঞানে দক্ষ এবং মানব সম্পদ তৈরী করা এবং সে লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। তিনি গতকাল ড্যাফোডিল টাওয়ারে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল কলেজ আয়োজিত ‘হাই স্কুল থেকে কলেজে পদার্পণ: চ্যালেঞ্জ ও করণীয়সমূহ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি শিক্ষার্থীদের মধ্যে নৈতিকতা ও মানবিক মূল্যবোধের মত বিষয়গুলো জাগ্রত করতে এবং কো- কারিকুলার ও এক্সট্রা কারিকুলার কর্মসূচীর আয়োজন বাড়াতে এবং শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

তিনি আজ ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল কলেজে আয়োজিত ‘হাই স্কুল থেকে কলেজে পদার্পণ: চ্যালেঞ্জ ও করণীয়সমূহ’ শীর্ষক সেমিনারে এসব কথা বলেন। ধানমন্ডির ড্যাফোডিল টাওয়ারে আয়োজিত এ সেমিনারে বিশেষ অতিথি ও মূখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগের প্রফেসর ড. খালেদ হোসাইন।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল কলেজের অধ্যক্ষ জামশেদুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পরিচালক স্টুডেন্ট এফেয়ার্সের সঞ্চালনায় সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন উপাধ্যক্ষ মোহাম্মদ এনামুল হক, সিনিয়র শিক্ষক মমিনুল হক।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি ও মূখ্য আলোচক প্রফেসর ড. খালেদ হোসাইন বলেন, কোন শিশুকেই অবহেলা করা উচিত নয়, কারন সময়ের আবর্তে সেও হয়ে উঠতে পারে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মানুষ। তিনি বলেন, পারিবারিক শিক্ষাই একটি মানুষের জন্য সেরা শিক্ষা।

তিনি বলেন, পারিবারিকভাবে একজন সন্তানকে সঠিক পথে পরিচালিত করতে বাবা পাইলটের ভূমিকা এবং মা নেভিগেটরের ভূমিকা পালন করে থাকেন। তাই অভিভাবকদের খেয়াল রাখতে হবে যেন তাদের সন্তানরা বিপথে চলে না যায়। অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, তিনি শিক্ষক ও অভিভাবকদের শিক্ষার্থীদের আরও বেশী সচেতন ও বন্ধুসুলভ হওয়ার পরামর্শ দেন।

অনুষ্ঠানে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন স্কুলের বিপুল সংখ্যক প্রধান শিক্ষক, সহকারি প্রধান শিক্ষক ও সিনিয়র শিক্ষকগন অংশগ্রহণ করে।

হাই স্কুল থেকে কলেজে

পছন্দের আরো পোস্ট