সালাম সাকলাইনের নাটক কারিগরনামা কলকাতায়

Estern zonal cultural centre কলকাতার সল্টলেকে ৬৪ দিনের (world biggest theatre festival) নাট্য উৎসবের আয়োজন করেছে। এখানে সারা বিশ্ব থেকে ২৩৪টি নাটক প্রদর্শিত হবে। বাংলাদেশ থেকে একমাত্র নাট্যজন সালাম সাকলাইনের নাটকই প্রদর্শিত হবে। নাটকটি নদীয়ার সূচনা নাট্যদল পরিবেশন করবে। সালাম সাকলাইন আশির দশকের নাট্যকার। তাঁর রচিত কারিগরনামা নাটকটি প্রদর্শিত হবে ৫ আগস্ট, যা এই নাটকটির ১৩৮তম শো। কারিগরনামা’র মূল কাহিনি গড়ে উঠেছে তাঁতী জোলাদের সংকটময় ও সংগ্রামের জীবন প্রসঙ্গ ঘিরে। ইতোপূর্বে ‘কারিগরনামা’ নাটকের ১২৮তম প্রদর্শনী কলকাতা শিশির মঞ্চে, ১৩৬তম প্রদর্শনী মিনার্ভা থিয়েটারে, ২২ মার্চ কামারহাটি নজরুল মঞ্চে,  ১২৭তম প্রদর্শনী হয় ১৫ ফেব্রুয়ারি কলকাতার দমদমে মোহিত মঞ্চে।  এর আগে নাটকটি ১ জানুয়ারি বহরমপুর রবীন্দ্রসদনে, ২৩ জানুয়ারি যাদবপুর নিরাঞ্জন সদন ও অশোকনগর শহীদ সদনে এবং ২৫ জানুয়ারি বড়শুলে কারিগরনামা নাটক মঞ্চায়ন করে।

সালাম সাকলাইনের অন্যান্য নাটকগুলি হলো : চোর, জাহেন আলিরে ধর, সেনেরখীলের তালুকদার, হামেদ আলীর স্বর্গদর্শন, বানরের পিঠা বণ্টন, কালো বেড়া বধ কর, মৃত্যুঞ্জয়ী মানুষেরা। তাঁর নাটক দেশময় সহস্রাধিকবার অভিনীত হয়েছে। ১৯৮৫ সালের ২৯ নভেম্বর সেনেরখীলের তালুকদার নাটকটি বিটিভি মঞ্চ থেকে সরাসরি প্রচারিত হয়।

‘সূচনা নাট্যদল’ ১৯৮৯ সাল থেকে নাট্য চর্চা করে আসছে। তাদের প্রদর্শিত প্রথম নাটক চোর। ইতোমধ্যে এই নাট্য দলটি শাঁওলি মিত্রের ‘নাথবর্তী অনাথৎ’ অবলম্বনে ‘দ্রৌপদী’, সালাম সাকলাইনের-এর ‘কারিগরনামা’, আন্তন চেখভের ‘গিরগিটি’, ফারুক হোসেনের ‘মানুষ তুই’, উপেন্দ্রকিশোর রায় চৌধুরীর ‘কেনারাম বেচারাম’ ও ছোটদের নাটক ‘লেগেছে আগুন, ভগবান ভাগুন’ পরাণ বন্দ্যোপাধ্যাযের ‘সত্যর ইচ্ছা’, নভেন্দু সেনের ‘নয়নকবীরের পালা’, মনোজ মিত্রের ‘চাকভাঙা মধু’, রবীন্দ্রনাথের ‘তোতা কাহিনী’ এবং সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘মনের মানুষ’ উপন্যাস ভিত্তিক ‘লালন ছুটছে’ নাটক মঞ্চস্থ করেছে। ভারতের বিভিন্ন স্থানে এই নাটকগুলো মঞ্চস্থ করেছে। সূচনার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও নির্দেশক সৃজন জানান, বিভিন্ন সময়ে নাট্য ব্যক্তিত্ব দেবাশিস সরকার, বাবলু চৌধুরী, আশিস দাস, দীপান্বিতা বণিক দাস, গৌতম মুখোপাধ্যায়, সঞ্জয় চট্রোপাধ্যায় ও সুশান্ত হালদার তাঁদের নাট্য কর্মশালা পরিচালনা করেছেন। সূচনা নাট্যদল তিনবার সরকারি নাট্যমেলায় অংশগ্রহণ করেছে। সততার সাথে ভালো নাটক করাই দলটির লক্ষ্য। দলের সদস্য সংখ্যা ছোট-বড় মিলিয়ে চৌত্রিশ জন। ভাবাদর্শভাবে সদস্যরা কেউই নামের পাশে পদবি ব্যবহার করে না।#

আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট