জবির প্রথম ছাত্রী হলের কাজ ৬০ শতাংশ সম্পন্ন

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থীদের প্রাণের দাবি আবাসিক হল নির্মাণ। হল ছাড়া পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় অনেকাংশেই অসম্পূর্ণ থেকে যায়। আবাসন সঙ্কট নিয়ে কোনো শিক্ষার্থী তার পড়াশুনা সঠিকভাবে চালিয়ে যেতে পারছে না। আবাসন সঙ্কট, নিরাপত্তাহীনতা, অর্থনৈতিক সঙ্কটসহ হাজারও সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় শিক্ষার্থীদের।

আবাসন সঙ্কট নিরসনে হল নির্মাণের দাবিতে ইতোপূর্বে বহুবার আন্দোলন হয়েছে। কিন্তু স্থান সঙ্কট, প্রশাসনিক জটিলতায় কোনো বাস্তব রূপ দেখা যায়নি। বিভিন্ন সময় আশ্বাস পাওয়া গেলেও বাস্তবে পরিণত হয়নি।

অবশেষে শিক্ষার্থীদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে বাংলাবাজার সরকারি স্কুলের পাশেই শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের তত্ত্বাবধানে শুরু হয়েছে প্রথম ছাত্রী হল নির্মাণ। ১৬ তলা প্রস্তাবিত ‘বেগম ফজিলাতুন্নেছা ছাত্রী হল’ নামের এ আবাসিক হলের কাজ ১০ তলা পর্যন্ত ইতোমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। ২০১৮ এর জুন মাসে হলটি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

হল নির্মাণে দায়িত্বরত কনস্ট্রাকশনের প্রজেক্ট ম্যানেজার জিল্লুর রহমান জানান, সময়ের মধ্যে এই ভবনের কাজ সম্পন্ন করা যাবে না তবে এর কাঠামো সম্পন্ন হবে। পরিপূর্ণভাবে এই কাজ শেষ হতে আরও তিন থেকে চার মাস সময় লাগবে। সময় লাগার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভবনের কাজ করার জন্য আশপাশে যে পরিমাণ জায়গার প্রয়োজন সেই পরিমাণ পর্যাপ্ত জায়গা নেই। তাই একপাশ থেকেই কাজ চালাতে হয়। ফলে একের অধিক কাজ করা যায় না।

ল নির্মাণের বিষয়ে উপাচার্য ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘হলের দায়িত্বে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতর রয়েছে। তাই আমরা এ ব্যাপারে তেমন কিছুই জানি না। ২০১৮ এর জুনে আমাদের কাছে হস্তান্তর করবে।

//শ

পছন্দের আরো পোস্ট