চুয়েটে তৃতীয়বারের মত অনুষ্ঠিত হলো রোবট দৌড়

1চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর রোবট গবেষণা ও চর্চা বিষয়ক সংগঠন রোরো মেকাট্রনিক্স এসোসিয়েশন (আরএমএ)-এর আয়োজনে শুক্রবার (০৮ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হল তৃতীয় বারের মত রোবট দৌড় প্রতিযোগিতা। বাংলাদেশ সিক্রেট সার্ভিস ও বাংলাদেশ ইনটেলিজেন্ট এজেন্সি নামে দুটি দলে বিভক্ত হয়ে রোবটগুলো দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগিতায় সারাদেশের ১২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০টি দলের মোট ১২০ জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। নক আউট রাউন্ডের তীব্র প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় ২১টি টিম । এ মধ্যে কোয়ালিফাইড টিম গুলো কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হয় এবং এ পর্যায়ে সেমিফাইনালে পোঁছে। এরপর বিইউবিটির উইনরার-০৯ ও সাসট্ এর সাসট্ প্লাস প্লাস ফাইনালে মুখোমুখি হয়। অত:পর বিজয়ী হয় সাসট্ প্লাস প্লাস।

 

শুক্রবার সকাল ১০টায় চুয়েটের পেট্রোলিয়াম ও মাইনিং ইন্জিনিয়ারিং ভবনে এই প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মো. জাহাঙ্গীর আলম। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন মাননীয় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. আশুতোষ সাহা, যন্ত্রকৌশল বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র বনিক প্রমুখ।

 

দিনব্যাপী আয়োজিত প্রতিযোগিতার শিরোণাম ছিল, “আর.এম.এ রোবোরেস ২০১৫- রোবো-মাফিয়া”। এখানে প্রতিটা দলের দুইটি রোবট ছিল। একটি রোবট সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয়। অন্যটি দূরনিয়ন্ত্রিত। স্বয়ংক্রিয় রোবটটি গাণিতিক হিসাবের মাধ্যমে একটি র্নিদিষ্ট স্থানে অপেক্ষা করে। অপরদিকে অন্য রোবটটি একটি বাক্স সংগ্রহ করে স্বয়ংক্রিয় রোবটির কাছে পৌঁছিয়ে দেয়। বিজয়ী হওয়ার জন্য স্বয়ংক্রিয় রোবটটিকে সবার আগে সব চেকপয়েন্ট পার করে শেষ প্রান্ত অতিক্রম করতে হয়। এখানে সামগ্রিক পয়েন্টর উপর ভিত্তি করে বিজয়ী র্নিধাতির হয়।

 

উল্লেখ্য, এর আগে চুয়েট রোবো মেকাট্রনিক্স এসোসিয়েশন ২০১১ ও ২০১৩ সালে রোবট দৌড় এবং টেক কার্নিভাল সফলভাবে আয়োজন করে।

 

লেখাপড়া২৪.কম/চুয়েট/পিআর/এমএএ-০৫৯৮

পছন্দের আরো পোস্ট