খুবিতে নগর ও গ্রামীণ পরিকল্পনা অনুষ্ঠান

kuখুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও গ্রামীণ পরিকল্পনা ডিসিপ্লিনে দিনব্যাপী ২৬ ডিসেম্বর রজতজয়ন্তী ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এই পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের দেশ-বিদেশে থাকা কর্মরত প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র-ছাত্রবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। গত ২৫ নভেম্বর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় রজতজয়ন্তী উৎসব বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর ও রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ঘোষণা করেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৫ ডিসেম্বর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের রজতজয়ন্তী ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়।

 

১৯৯০-৯১ শিক্ষাবর্ষে চারটি ডিসিপ্লিন নিয়ে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে যাত্রা শুরু হয় যার মধ্যে নগর ও গ্রামীণ পরিকল্পনা ডিসিপ্লিন একটি। এই ডিসিপ্লিনের মাধ্যমেই বাংলাদেশে পরিকল্পনা শিক্ষার ¯œাতক পর্যায়ে শিক্ষাকার্যক্রম শুরু হয়। গত পঁচিশ বছরে এখান থেকে ৭০০ পরিকল্পনাবিদ ডিগ্রি লাভ করেন যারা বাংলাদেশ এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নগর ও উন্নয়ন পরিকল্পনার সাথে সম্পৃক্ত।

 

উক্ত রজতজয়ন্তী অনুষ্ঠানে ১৫০জন পরিকল্পনাবিদসহ তাদের পরিবারবর্গ অংশ নেন। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য পরিকল্পনাবিদ প্রফেসর ড. গোলাম রহমান। তিনি এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে নগর ও গ্রামীণ পরিকল্পনা ডিসিপ্লিনের আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পরিকল্পনা বিষয়ক গবেষণা ও পেশাদারী সুনামের কথা উল্লেখ করেন।

 

এছাড়া অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ রেজাউল করিম, প্রতিষ্ঠাকালীন শিক্ষক প্রফেসর ড. মোঃ গোলাম মরতুজা এবং স্কাইপ যোগে বিদেশে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানী থেকে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা বক্তব্য প্রদান করেন। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিলো খেলাধূলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মঞ্চ নাটক। অনুষ্ঠানটি পরিকল্পনা ও পরিচালনা করেন প্রফেসর ড. মোঃ আহসানুল কবির এবং সার্বিকভাবে তত্ত্বাবধান করেন সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ মোস্তফা সারোয়ার। এ সময় সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

লেখাপড়া২৪.কম/খুবি/পিআর/এমএএ-০৪৯৯

পছন্দের আরো পোস্ট