সাতক্ষীরায় কলেজছাত্র নিহতের ঘটনায় ৪ জন গ্রেফতার

satkhira
সাতক্ষীরার আশাশুনিতে পানি নেয়াকে কেন্দ্র করে কলেজছাত্র নিহত হওয়ার ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার ভোররাতে আশাশুনির শোভনালী ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন-পূর্ব বাঁকড়া গ্রামের ইনতাজ

আলীর পুত্র নিজাম উদ্দীন, বিল্লাল, খায়রুল ইসলাম ও একই এলাকার তোরশেদ আলীর ছেলে আবদুর রাজ্জাক।

আশাশুনি উপজেলার বাঁকড়া গ্রামের মৃত ইসমাইল সরদারের ছেলে আলিমুদ্দিন সরদার ও নিজামউদ্দিন সরদারের বাড়ির সামনে তাদের জমিতে একটি ডিপ টিউবওয়েল রয়েছে।

মিটার রিডিং অনুযায়ী টাকা পরিশোধের ভিত্তিতে ওই ডিপ টিউবওয়েল থেকে বাঁকড়া গ্রামসহ আশপাশ এলাকায় পানি সরবরাহ করা হয়ে থাকে।

কিন্ত বেশ কিছুদিন যাবৎ পূর্ব বাঁকড়া গ্রামের লোকেরা পানি নিয়ে বিল পরিশোধ করছিল না। শুক্রবার দুপুরে ওই এলাকার লোকজন পানি নিতে আসলে আলিমুদ্দিন ও নিজামউদ্দিনের লোকজন তাদের বাধা দেয়।

এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে বিকালে পূর্ব বাঁকড়া গ্রামের এন্তাজ আলীর ছেলে সাইফুল্লাহ ও একই এলাকার মোহাম্মাদ এবং আহম্মাদ আলীর নেতৃত্বে শতাধিক লোকজন পশ্চিম বাকড়ায় এসে অতর্কিতে তাদের ওপর হামলা চালায়।

এ সময় হামলাকারীরা গলায় ও বুকে ধারালো দায়ের কোপ দিয়ে কলেজছাত্র হাবিবুল্লাহকে হত্যা করে। হাবিবুল্লাহ মাটিতে লুটিয়ে পড়ার পর হামলাকারীরা পিছু হটে যায়।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা ও চাচাসহ ১৪-১৫ জন গ্রামবাসী আহত হয়। নিহত হাবিবুল্লাহ সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের ইতিহাস বিভাগের ছাত্র।

হাবিবুল্লাহ নিহতের ঘটনায় সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের শিক্ষক- ছাত্রছাত্রীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

স: ইএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট