শের-ই-বাংলা মেডিকেলে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন বুট ক্যাম্প

mobile-application-boot-camp-barisal
বরিশালের শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়ের অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে বরিশাল বিভাগীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন বুট ক্যাম্প।

মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের উদ্যোগে দিনব্যাপী এই বুট ক্যাম্পের উদ্ভোধন করা হয়।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ (আইসিটিডি) উপ-সচিব ড. মোহাম্মদ আবুল হাসানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব মোঃ নজরুল ইসলাম খান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের লক্ষ্য হলো ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার। এরই আওতায় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন তৈরী করে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশ করে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হবার জন্য এই কর্মসূচি।

তিনি আরও বলেন, এজন্য ফ্রিল্যান্সারদের উদ্যোক্তা বানানোর প্রক্রিয়া চলছে দেশের প্রতিটি উপজেলায়। যাতে করে টেকনোলজীর এই সুবিধা পেয়ে ২০২০ সালে জাপানে অনুষ্ঠিত অলিম্পিক গেমসের ৮৭ বিলিয়ন ডলারের মার্কেট বাংলাদেশ দখল করতে পারে। এজন্যই তরুণদের সচেতনতা বৃদ্ধি বিভাগীয় পর্যায়ে এই বুট ক্যাম্পের আয়োজন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- বিশেষ অতিথি বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. রনজিৎ চন্দ্র খান, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মো. হারুণ অর রশিদ খান, বরিশালের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইব্রাহিমসহ প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, সরকার তরুনদের স্বাবলম্বী করতে বর্তমান বাজেটে তথ্য প্রযুক্তি খাতে বিশেষ বরাদ্দ রেখেছেন। প্রতিটি বিভাগে তথ্য প্রযুক্তি খাতে বিশেষ প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।

তারা বলেন, বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর মতো আমাদের দেশের তরুণরা তাদের মেধা দিয়ে তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ভাল অবস্থান সৃষ্টি করেছে। বর্তমানে তরুণ সমাজের স্বাবলম্বী হওয়ার প্রধান হাতিয়ার তথ্য প্রযুক্তি।

মোবাইল এ্যাপ্লিকেশন বুট ক্যাম্পে বরিশাল বিভাগের বাছাইকৃত এবং নবাগত উৎসাহী প্রায় ৬ শত তরুন-তরুনী অংশ নেন।

দিনব্যাপী বুট ক্যাম্পে অ্যাপ্লিকেশন ও গেমস তৈরির বিভিন্ন পদ্ধতি বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। পাশাপাশি অ্যাপ্লিকেশন তৈরির অসুবিধা দূর করতে করণীয় বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা হয়।

স: ইএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট