খুবিতে করোনা নমুনা পরীক্ষায় স্থাপিত ল্যাব পরিদর্শন

খুবি প্রতিনিধি।

১২ জুন সকাল ১১ টায় প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায় কেন্দ্রীয় গবেষণাগার ভবনে জিনোমিক্স ল্যাবে স্থাপিত আরটি-পিসিআর মেশিন পরিদর্শন করেন। সেখানে তারা করোনার নমুনা পরীক্ষার সুযোগ-সুবিধাদি দেখেন। এ সময় তারা করোনা নমুনা পরীক্ষার বিভিন্ন দিক উল্লেখ করেন এবং বায়োসেফটি এন্ড বায়োমেজরিটির বিষয় নিয়েও কথা বলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে বর্তমানে যে সুবিধা আছে তাতে করোনা নমুনা পরীক্ষার উপযোগগিতার বিষয়ে ইতিবাচক মনোভাব ব্যক্ত করে প্রতিনিধি দলের সদস্যবৃন্দ কয়েকটি বিষয়ে সুযোগ বৃদ্ধিতে কিছু পরামর্শ দেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস প্রতিনিধিদলের সদস্যদের স্বাগত জানান এবং এই ল্যাবে করোনার নমুনা পরীক্ষা দ্রুত শুরু করার ব্যাপারে বর্তমান উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেনের একান্ত আগ্রহ ও নির্দেশনার কথা উল্লেখ করেন। খুলনায় করোনার নমুনা পরীক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবকে অন্তর্ভূক্তির উদ্যোগ গ্রহণে উপাচার্যের পক্ষ থেকে কেসিসির মেয়র, জেলা প্রশাসক ও স্বাস্থ্য বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানানোর কথাও তিনি উল্লেখ করেন।

একই সাথে তিনি স্বল্প সময়ের মধ্যে পরিদর্শনে আসার জন্য প্রতিনিধিদলের সদস্যদের ধন্যবাদ জানান। রেজিস্ট্রার আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপনে প্রাক্তন উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামানের উদ্যোগ ও প্রচেষ্টোর কথাও স্মরণ করেন।

এসময় প্রতিনিধিদলের সদস্য হিসেবে খুলনা মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডা. এস.এম. তুষার আলম, জেলা প্রশাসনের পক্ষে সহকারী কমিশনার এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তাহমিদুল ইসলাম, খুলনা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. শেখ সাদিয়া মনোয়ারা ঊষা এবং খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় গবেষণাগারের যুগ্ম পরিচালক প্রফেসর ড. কাজী মোহাম্মদ দিদারুল ইসলাম, প্রফেসর ড. নাজমুল ইসলাম, প্রফেসর ড. তুহিন রায়, জনসংযোগ ও প্রকাশনা বিভাগের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আতিয়ার রহমান, উপাচার্যের সচিব সঞ্জয় সাহাসহ সংশ্লিষ্ট ল্যাবের কর্মকর্তা ও টেকনিশিয়ানবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এই পরিদর্শন ও আলোচনার প্রেক্ষিতে আগামীকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট ল্যাবের যুগ্ম পরিচালক প্রফেসর ড. কাজী মোহাম্মদ দিদারুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি টেনিক্যাল প্রতিনিধদল খুলনা মেডিকেল কলেজ ও করোনা পরীক্ষার সংশ্লিষ্ট সুবিধাদি দেখবেন। অপরদিকে প্রতিনিধিদলের পক্ষ থেকে আগামীকাল খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনা পরীক্ষার ল্যাব সম্পর্কে একটি রিপোর্ট দেওয়া হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

এরপরই সরকারের যথাযথ অনুমোদন পেলেই খুব শীঘ্রই খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনা নমুনা পরীক্ষা শুরু করা হবে। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ল্যাবে প্রাথমিকভাবে প্রতিদিন প্রায় একশত নমুনা পরীক্ষা  করা যাবে এবং পরবর্তীতে এই সংখ্যা বৃদ্ধির সুযোগ সৃষ্টি করা সম্ভব হবে বলে আশা করা যায়।

পছন্দের আরো পোস্ট