কুয়েটে “ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ” দিবস উদযাপিত

কুয়েট প্রতিনিধি।

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) এ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ প্রদত্ত ভাষণের দিনটি “ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ” দিবস ২০২১ যথাযোগ্য মর্যাদায় উদ্যাপন করা হয়েছে।

৭ই মার্চ রবিবার সূর্যোদয়ের সাথে সাথে প্রশাসনিক ভবন, ভাইস-চ্যান্সেলর মহোদয়ের বাসভবন এবং আবাসিক হলসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল সাড়ে ৯ টায় ক্যাম্পাস্থ বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন। এরপর পর্যায়ক্রমে শিক্ষক সমিতি, পরিচালক (ছাত্র-কল্যাণ), অফিসার্স এসোসিয়েশন, ফজলুল হক হল, লালন শাহ্্ হল, খানজাহান আলী হল, ড. এম. এ. রশীদ হল, রোকেয়া হল, অমর একুশে হল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কর্মকর্তা সমিতি (আপগ্রেডেশন), তৃতীয় শ্রেণী কর্মচারী সমিতি, চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতি, মাস্টাররোল কর্মচারী সমিতি, গৌরব ৭১, ডিপ্লোমা প্রকৌশলী সমিতির পক্ষ থেকে পুস্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

সকাল সাড়ে ১০ টায় “ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ” দিবস উদ্যাপন উপলক্ষ্যে স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার সেন্টারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক প্রদত্ত ভাষণ প্রচার, বঙ্গবন্ধুর জীবনভিত্তিক ডকুমেন্টরি প্রদর্শনী শেষে অনুষ্ঠিত হয় আলোচন সভা। ভারপ্রাপ্ত পরিচালক (ছাত্র কল্যাণ) প্রফেসর ড. ইসমাঈল সাইফুল্যাহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে আলোচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন।

এসময় তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণে বাঙালী স্বাধীনতার চেতনায় উজ্জীবিত হয়। ৭ই মার্চের ভাষণই ছিলো মুক্তিযুদ্ধের প্রেরণা। ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ বাঙালী জাতির জীবনে অপরিসীম গুরুত্ব বহন করে”।

বিশেষ অতিথি হিসেবে আলোচনা করেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আবু ইউসুফ, ইইই অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. কে, এম, আজহারুল হাসান, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ আনিছুর রহমান ভূঞা।

জনসংযোগ ও তথ্য শাখার সহকারী পরিচালক মনোজ কুমার মজুমদার এর সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. পল্লব কুমার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ড. মোঃ আব্দুল হাসিব, প্রফেসর ড. শিবেন্দ্র শেখর শিকদার, প্রফেসর ড. মহিউদ্দিন আহমাদ, প্রফেসর ড. সোবহান মিয়া, প্রফেসর ড. মোঃ মোস্তফা সারোয়ার, প্রফেসর ড. কাজী এবিএম মহীউদ্দিন, প্রফেসর ড. পিন্টু চন্দ্র শীল, প্রফেসর ড. সজল কুমার অধিকারী, “খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো ও একাডেমিক কার্যক্রম সম্প্রসারণ” প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী ড. মোঃ জুলফিকার হোসেন, অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি প্রকৌশলী হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ, সহ-সভাপতি প্রকৌশলী মোঃ মাহমুদুল হাসান, কর্মকর্তা সমিতির (আপগ্রেডেশন) সভাপতি জি, এম, মনিরুজ্জামান, কর্মচারী সমিতির (৩য় শ্রেণী) সভাপতি মোঃ মামুনুর রশীদ, মাস্টাররোল কর্মচারী সমিতির সভাপতি শামীম রেজা। উল্লেখিত সকল কর্মসূচি সরকারের জারীকৃত স্বাস্থ্যবিধি অনূসরণপূর্বক অনুষ্ঠিত হয়।

পছন্দের আরো পোস্ট