রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

রাবি প্রতিনিধি।

আজ অমর একুশে। ১৯৫২ সালের এই দিনে বাংলাকে অন্যতম রাষ্ট্রভাষা ঘোষণার দাবীতে ছাত্র-জনতার মিছিলে পুলিশ গুলি চালালে বরকত, সালাম, রফিক, জব্বার, শফিউর নিহত এবং অনেক ভাষা আন্দোলনকারী আহত হন। পরবর্তীতে ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো ২১শে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ঘোষণা করে। ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মরণে এই দিনটি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আজ যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা হয়।

দিবসের প্রথম প্রহর রাত ১২:০১ মিনিটে উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান, উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ ও রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. আবদুস সালামসহ প্রশাসনের ঊর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপাচার্য ভবন থেকে র‌্যালি করে এসে বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন।

সেখানে অন্যদের মধ্যে প্রক্টর ও ছাত্র-উপদেষ্টা প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক ড. মো. আজিজুর রহমান, অনুষদ অধিকর্তা, ইনস্টিটিউটসমূহের পরিচালক, হলসমূহের প্রাধ্যক্ষবৃন্দ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এরপর শহীদ স্মৃতি সংগ্রহশালাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।

ভোরে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে প্রশাসন ভবনসহ অন্যান্য ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে উত্তোলন করা হয়। সকাল ৭টা থেকে বিভিন্ন আবাসিক হল, বিভাগ ও ইনস্টিটিউট, রাবি শিক্ষক সমিতি ও রাবি মহিলা ক্লাবসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান, রাবি স্কুল ও শেখ রাসেল মডেল স্কুল প্রভাতফেরীসহ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।

দিবসের কর্মসূচিতে আরো ছিল, সকাল ৮:৩০ মিনিটে রাবি অফিসার সমিতির কার্যালয়ে সমিতির এবং সকাল ১০:৩০ মিনিটে সহায়ক কর্মচারী সমিতি, সাধারণ কর্মচারী ইউনিয়ন ও পরিবহন টেকনিক্যাল কর্মচারী সমিতির নিজ নিজ কার্যালয়ে আলোচনা সভা; একই সময়ে কেন্দ্রীয় কাফেটেরিয়ায় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, রাবি ইউনিট কমান্ডের আলোচনা সভা; বাদ জোহর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআনখানি ও মোনাজাত এবং সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা।

পছন্দের আরো পোস্ট