অনন্য মামুনের সিনেমায় ফের অপু

ফয়সাল হাবিব সানি।

বর্তমান সময়ে ছোট পর্দার তুমুল জনপ্রিয় ব্যস্ত অভিনেতা রাশেদ মামুন অপু। ছোট পর্দায় যারা বাংলা নাটকের সঙ্গে সম্পৃক্ত বা বাংলা নাটককে যারা ভালোবাসেন, তারা রাশেদ মামুন অপুর নাম শোনেনি তা বলাটা অযৌক্তিক ও সবথেকে বড়ো ভুল হবে। প্রথমে দসিটিবাস’ নাটক দিয়ে দর্শকদের মন জয় করেন ছোট পর্দার এই জনপ্রিয় অভিনেতা। পরবর্তীতে দআমি তোতা মিয়া’, দযবের ব্যাপার’, দমামুর বেটা নাকি’, দছোট ভাইকে বাচতেই পারছেন না’ সহ বেশ কিছু ডায়লগ তাকে দর্শকদের কাছে অল্পদিনেই ব্যাপক জনপ্রিয় করে তোলেন। বিশেষত, নাটকে আঞ্চলিক ভাষা ব্যবহারের পারঙ্গমতা ও পারদর্শিতাকে তার জনপ্রিয়তার অন্যতম টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। তবে ছোট পর্দার পাশাপাশি ইদানিং বড়ো পর্দাতেও তার অভিনয় প্রতিভা বিশেষভাবে সমাদৃত হয়েছে।

গত ১৬ ডিসেম্বর (বুধবার) দেশের জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা অনন্য মামুন পরিচালিত নবাব এলএলবি সিনেমাটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেয়েছে। আর এই সিনেমায় শাকিব খান, মাহিয়া মাহির সঙ্গে অভিনয়ও করেছেন তিনি। এ সিনেমায় অভিনয় করে বেশ প্রশংসিতও হয়েছেন অপু। নবাব এলএলবি সিনেমার পর আবারও অনন্য মামুন পরিচলিত দকসাই’ নামক একটি চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা। সেই সাথে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত দেশবরেণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত দযাও পাখি বলো তারে’ চলচ্চিত্রেও চুক্তিবদ্ধ হবার বিষয়টি তিনি গণমাধ্যমকে জানান।

সম্প্রতি, তিনি শুটিং করছেন বাংলাদেশি-আমেরিকান চলচ্চিত্র পরিচালক ইফতেখার চৌধুরী পরিচালিত ও তার নিজস্ব প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান দসিনেবাজ’ প্রযোজিত দমুক্তি’ নামক ব্যতিক্রমী অ্যাকশন ঘোরানার একটি চলচ্চিত্রে। তাছাড়াও, কিছুদিন পূর্বে মুক্তিপ্রাপ্ত দজানোয়ার’ নামক ওয়েবফিল্মে অভিনয় করে সাড়া জাগিয়েছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা। বলে রাখা শ্রেয় যে, আইনে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেও মোটা অঙ্কের কর্পোরেট চাকরি ছেড়ে অভিয়নকেই তার জীবনের পেশা, জ্ঞান ও ধ্যান হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন এই অভিনেতা। তবে ভোগ করেছেন তার সুফলও। ফলস্বরূপ, বারবারই অগণিত ভক্তের ভালোবাসায় সিক্ত ও অভিভূত হয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, নির্মাতা হবার স্বপ্ন নিয়ে অভিনয় জীবন শুরু করে অপু হয়ে গেলেন একজন সাবলীল পরিপূর্ণ মেধাবী অভিনেতা। বর্তমানে তিনি ছোটপর্দা, বড়োপর্দা এবং ওটিটি প্ল্যাটফর্ম এই তিন মাধ্যমেই নিজের মেধার ও প্রতিভার স্বাক্ষর রাখতে চান। নিজেকে প্রতিনিয়তই নতুনভাবে মেলে ধরতে চান দর্শকদের সামনে। বিভিন্ন চরিত্রের প্রয়োজনে নিজেকে বারবার ভাঙা ও গড়া হয়ে উঠেছে রাশেদ মামুন অপুর নিত্যনতুন নেশা।

পছন্দের আরো পোস্ট