রাবিতে রচনা প্রতিযোগিতায় পুরস্কার পেলেন যারা 

রাবি প্রতিনিধি।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস ২০২০ উপলক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজিত রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার প্রদান গতকাল সোমবার অনুষ্ঠিত হয়। বেলা ১২টায় শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসন ভবনের কনফারেন্স রুমে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে এই পুরস্কার প্রদান করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান।

অনলাইনে আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক রচনা প্রতিযোগিতায় মধুসূদন বর্মন (ইনফরমেশন সায়েন্স এন্ড লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট বিভাগ) প্রথম স্থান, জুঁই রাণী বর্মণ (বাংলা বিভাগ) দ্বিতীয় স্থান ও তামান্না হোসেন (আইন বিভাগ) তৃতীয় স্থান অধিকার করেন।

পুরস্কার প্রদানের পর উপাচার্য তাঁর সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের একজন সুনাগরিক হতে চাইলে তাকে প্রথমেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং বঙ্গবন্ধুর জীবন আদর্শ সম্পর্কে জানার কোনো বিকল্প নাই। এজন্য প্রয়োজন প্রাসঙ্গিক বিষয়ে নিরন্তর চর্চা। রচনা প্রতিযোগিতা সে চর্চার অন্যতম অনুশীলন। এই রচনা প্রতিযোগিতার মধ্যে দিয়ে আমাদের শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধু তথা তাঁর চেতনা ও আদর্শকে আরো গভীরভাবে জানার সুযোগ পেল। আগামীতে এই রচনা প্রতিযোগিতা বিস্তৃত পরিসরে আয়োজনের ইচ্ছার কথাও উপাচার্য উল্লেখ করেন।

পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া, প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান,জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক ড. মো. আজিজুর রহমান, শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পরিচালক ও প্রতিযোগিতার আহ্বায়ক প্রফেসর মো. হাসিবুল আলম প্রধান, আইসিটি সেন্টারের পরিচালক প্রফেসর মো. বাবুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ ড. মো. রওশন জাহিদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিযোগিতায় ৩৭টি রচনা জমা পড়ে। প্রফেসর স্বরোচিষ সরকার (আইবিএস), প্রফেসর মর্ত্তুজা খালেদ (ইতিহাস বিভাগ) ও ড. সৈয়দ আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী (আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ) সমন্বয়ে তিন সদস্যবিশিষ্ট বিচারকম-লী প্রাপ্ত রচনাগুলো মূল্যায়ন করেন।

পছন্দের আরো পোস্ট