সরিষার ফুলে শোভিত প্রকৃতি

আব্দুর রহমান,সাতক্ষীরা।

সাতক্ষীরা জেলায় বিস্তীর্ণ মাঠে চাষ করা হচ্ছে সরিষা। যেদিকে দু’চোখ যায় মাঠে শুধু সরিষা ফুলের সমারোহ। সরিষার ক্ষেত হলুদ ফুলের গন্ধ যেন দিক দিগন্ত রাঙিয়ে দিয়েছে। মাঠের পর মাঠ হলুদ হাসিতে ভরে তুলেছে প্রকৃতির চিত্র। চির সবুজের বুকে এ যেনো কাচা হলুদের আল্পনা। যেদিকে চোখ যায় সেদিকেই যেনো ফুলের মেলা। ফুলে ফুলে মৌমাছি মধু আহরণ করছে। চারিদিকে প্রকৃতির বুকে সুন্দরের আগুন। প্রকৃতি সেজেছে অপরূপ সৌন্দর্যের নান্দনিক রূপে।

কলারোয়া উপজেলার উফাপুর গ্রামের কৃষকরা জানান, ‘সরিষার গাছ, ফুল ও ফল ভালো হয়েছে। আশা করছি বাম্পার ফলন হবে। এ বছর উপযুক্ত দাম পেলে আগামী বছর সরিষা চাষে আরো অনেকেই ঝুঁকে পড়বে বলে মনে করেন তারা।’

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা তামান্না তাছনীম জানান, বারি সরিষা-১৪ ফলন ভালো হওয়ায় কৃষকরা আগ্রহী হয়ে উঠছে। এর তেলের গুণাগত মানও অনেক ভালো। কৃষক তার উৎপাদিত সরিষার ভাল দাম পাচ্ছেন বলেও জানান কৃষি বিভাগের ওই কর্মকর্তা।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর (খামারবাড়ি) সাতক্ষীরা’র উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মোঃ নুরুল ইসলাম জানান, এবছর জেলায় সরিষা চাষে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১১ হাজার ৫শ হেক্টর জমিতে। ইতোমধ্যে আমাদের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে। অনুকূল আবাহাওয়া ও নিবিড় পরিচর্যার কারণে এ অঞ্চলের কৃষকেরা সরিষার ভালো ফলন পেয়েছেন। বিঘা প্রতি ৬-৮ মণ সরিষা পাচ্ছে কৃষকরা। এছাড়া প্রায় ৩ হাজার মৌ বক্স স্থাপন করায় ১৫-২০% ফলন বৃদ্ধি পাবে বলে জানান তিনি।

সাতক্ষীরা জেলার সাতটি উপজেলার ১১ হাজার ৫শ হেক্টর জমিতে চাষ করা হয়েছে সরিষা। হলুদ সরিষা ফুলের শোভিত প্রকৃতিতে কৃষকের প্রাণ জুড়িয়ে যাবে। সরিষা ফুলের মন মাতানো গন্ধে সবাইকে আকৃষ্ট করে। সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলায় এবছর সরিষার আবাদ হয়েছে চোখে পড়ার মতো।

পছন্দের আরো পোস্ট