মহান শিক্ষা দিবস আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজ ১৭ সেপ্টেম্বর, মহান শিক্ষা দিবস। ১৯৬২ সালের এ দিনে পাকিস্তানি শাসন, শোষণ ও শিক্ষা সংকোচন নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে শহীদ হন ওয়াজিউল্লাহ, গোলাম মোস্তফা, বাবুলসহ নাম না জানা অনেকে। তাঁদের স্মরণে প্রতি বছর এ দিনকে শিক্ষা দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের গণবিরোধী শিক্ষা সংকোচনমূলক নীতির প্রতিবাদে এবং একটি গণমুখী শিক্ষানীতি প্রবর্তনের দাবিতে ছাত্র-জনতার ব্যাপক আন্দোলনের রক্তাক্ত স্মৃতিবিজড়িত দিন এটি। প্রতি বছর যথাযোগ্য মর্যাদায় সারা দেশে দিবসটি পালিত হয়। দিবসের শহীদদের স্মরণে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও ছাত্র সংগঠন বর্ণাঢ্য কর্মসূচি ঘোষণা করে। এর অংশ হিসেবে শিক্ষা অধিকার চত্বরে শিক্ষা আন্দোলনে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ছাত্র সংগঠন। দিবসটি উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে।

সূত্রমতে, স্বৈরশাসক আইয়ুুব খান ক্ষমতা দখলের মাত্র দুই মাসের মাথায় ১৯৫৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একটি শিক্ষা কমিশন গঠন করেন। শরীফ কমিশন নামে খ্যাত এস এম শরীফের নেতৃত্বে গঠিত এ কমিশন ’৫৯ সালের ২৬ আগস্ট প্রতিবেদন পেশ করে। এতে শিক্ষা বিষয়ে যেসব প্রস্তাব ছিল তা প্রকারান্তরে শিক্ষা সংকোচনের পক্ষে গিয়েছিল। প্রস্তাবিত প্রতিবেদনে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা ক্ষেত্রে ছাত্র বেতন বর্ধিত করার কথা ছিল। আইয়ুব সরকার এ রিপোর্টের সুপারিশ গ্রহণ এবং তা ’৬২ সালে বাস্তবায়ন শুরু করে। এ কমিশন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বায়ত্তশাসনের পরিবর্তে পূর্ণ সরকারি নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা, বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে রাজনীতি নিষিদ্ধ, ছাত্র-শিক্ষকদের কার্যকলাপের ওপর গভীর নজর রাখার প্রস্তাব করে। শিক্ষকদের ১৫ ঘণ্টা কাজের বিধান রাখা হয় এতে।

বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন আইয়ুবের এ শিক্ষানীতির বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়। ঢাকা কলেজ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জুলাই-আগস্ট জুড়ে আন্দোলন চলতে থাকে। এ আন্দোলন কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের নেতৃত্বে ১৭ সেপ্টেম্বর দেশব্যাপী হরতাল পালনের ঘোষণা দেওয়া হয়। এদিন সকাল ১০টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজার হাজার শিক্ষার্থী সমাবেশে উপস্থিত হন। সমাবেশ শেষে মিছিল বের হয়। হাই কোর্টের সামনে পুলিশ বাধা দেয় মিছিলে। আবদুল গনি রোডে পুলিশ মিছিলের পেছন থেকে লাঠিচার্জ, কাঁদুনে গ্যাস ও গুলিবর্ষণ করে। এতে তিনজন নিহত হন। ওই দিন সারা দেশে মিছিলে পুলিশ গুলি চালায়।

পছন্দের আরো পোস্ট