অপূর্ব-ডি.আই.ইউ গবেষণা ও উন্নয়ন ল্যাব উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক।

আাজ (১০ সেপ্টম্বর ২০২০) বৃহস্পতিবার ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে বাংলা ভাষা প্রক্রিয়াকরণে কম্পিউটার ভিত্তিক বাংলা অক্ষর শনাক্তকরণ প্রকল্প “অপূর্ব-ডি.আই.ইউ গবেষণা ও উন্নয়ন ল্যাব উদ্বোধন” করা হয়।

অনুষ্ঠাানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ও ব্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ মোহাম্মদ কায়কোবাদ। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশণাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ডঃ মোহাম্মদ লুৎফর রহমান।

অনুষ্ঠানে সভাপত্বি করেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশণাল ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য ডঃ এস.এম.মাহবুব উল হক মজুমদার। প্রধান বক্ত্য হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অপূর্ব টেকনোলজিস এর প্রষ্ঠিাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডঃ ফুয়াদ রহমান।

অপূর্বর উদ্যোগে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডি.আই.ইউ) এর সমন্বয়ে এই গবেষণা ও উন্নয়ন ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে। এই উদ্যোগের মাধ্যমে ইতিমধ্যে তিনজন শিক্ষক এবং তিনজন গবেষণা সহযোগী এই প্রকল্পের কাজে যুক্ত হয়েছেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের দিন থেকে শুরু করে এই ল্যাবটির অধীনে, অসংখ্য ব্যবহারকারী নিজস্ব প্রয়াসে বাংলা অক্ষরকে কম্পিউটারের ভিত্তিতে সঠিকভাবে নিরূপণ করার কাজটি সরাসরি বিভিন্ন মাধ্যম হতে সংগৃহীত ছবি থেকে (প্রায় ৮.৪ মিলিয়ন) সমৃদ্ধকরণে বাংলা মুদ্রিত অক্ষর শনাক্তকরণ করা হবে যা ল্যাবের নিজস্ব তৈরিকৃত ওসিআর এর মাধ্যমে সম্পাদিত হয়েছে। এর মাধ্যমে বাংলা ভাষার কম্পিউটারাইজেশনের জন্য এই প্রথম আমরা একটি প্রত্যাশিত প্রকল্প চালু হল।

অপূর্ব একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন “গেম” তৈরি করেছে, যার নাম “সুবর্ণচয়ন”, যা ইতিমধ্যে গুগল প্লে স্টোর প্রকাশিত হয়েছে (https://play.google.com/store/apps/details?id=com.gamifications.gamify) যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা কম্পিউটার ভিত্তিক অক্ষর শনাক্তকরণ করতে পারবে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, প্রায় এক হাজার ডি.আই.ইউ শিক্ষার্থী এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করবে এবং এই সংকলনটি গৌরবমন্ডিত পর্যায়ে পৌঁছবে।

পছন্দের আরো পোস্ট