জবির ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার!

জবি প্রতিনিধি।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়(জবি) ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের বর্তমান চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মনিরুজ্জামান তার বিরুদ্ধে আপত্তিকর, মিথ্যা, ভিত্তিহীন, ও বানোয়াট তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান। সোমবার(২৪ আগষ্ট) এক বিবৃতিতে তিনি নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের কতিপয় শিক্ষক গত ২৩ ও ২৪ আগস্ট ২০২০ তারিখ তাদের ব্যক্তিগত ফেইবুক ওয়ালে বিভাগের বর্তমান চেয়ারম্যানকে নিয়ে আপত্তিকর, মিথ্যা, ভিত্তিহীন, ও বানোয়াট তথ্য উপস্থাপন করছেন। বিষয়টি আমার নজরে এসেছে। সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত স্বার্থ চরিতার্থ করা, বিভাগ ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অবৈধ ও অন্যায় সুযোগ-সুবিধা আদায়, নিজেদের দুর্বলতা ও নোংরা কাজ ঢাকার মানসে এ ধরনের হীন কর্ম ও চক্রান্তে লিপ্ত হয়েছে। বিভাগ ও বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে জনমনে বিরূপ ধারণা প্রদান ও বিভ্রান্তি ছড়ানোর কুট কৌশল হিসেবে এ ধরনের অপপ্রচার করেছে। এর মাধ্যম বিভাগের বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থী, সহকর্মী ও সাধারণের মধ্যে আমার ব্যক্তিগত মান-সম্মান ও ইমেজ ক্ষুন্ন করা হয়েছে। এ ছাড়া মীমাংসিত বিষয়ে বার বার মনগড়া অভিযোগ করা হচ্ছে।

তিনি আরো তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, এটি একটি নিন্দনীয় কাজ এবং তা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন, বিধি এবং বাংলাদেশের বিদ্যমান আইনে মারাত্মক অপরাধ।

উল্লেখ্য, বিভাগের চেয়ারম্যান হিসেবে গত ১২ নভেম্বর ২০১৯ দায়িত্ব নেয়ার পর বিভাগের যাবতীয় অফিসিয়াল ও একাডেমিক কাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন, বিধি ও রেওয়াজ মেনে পালন করে আসছি। কোনরূপ ব্যত্যয় হয় নি। অনুরাগ ও বিরাগ বশবর্তী হয়ে কোন সিদ্ধান্ত হয় নি। বিভাগের নীতি-নির্ধারণী যে কোন সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্ট কমিটির মাধ্যমে হয়ে থাকে।

অধিকন্ত, বিভাগের হিসাব পরিচালনা, পরীক্ষা পরিচালনা বা উন্নয়নমূলক কাজ সংশ্লিষ্ট কমিটি করে থাকে। কোন কোন ক্ষেত্রে চেয়ারম্যান শুধুমাত্র অনুমোদন করেন বা অবহিত হয়। বিভাগ পরিচালনায় কোনরূপ ব্যত্যয় হলে বা ভিন্ন বক্তব্য থাকলে তা বিভাগের একাডেমিক কমিটি ও প্ল্যানিং কমিটিতে আলোচনার সুযোগ রয়েছে। তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগ ও এর দায়িত্বপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সম্পর্কে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট অপপ্রচার থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ জানান।

পছন্দের আরো পোস্ট