ইবি নিয়ে অসত্য সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদ বিভিন্ন সংগঠনের

ইবি প্রতিনিধি।

সম্প্রতি কিছু পত্র-পত্রিকায় ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ, ডে-লেবার ও উন্নয়ন কর্মকান্ড নিয়ে যেসব সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ বানোয়াট, ভিত্তিহীন, ষড়যন্ত্রমূলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে মন্তব্য করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা।

তারা বলেছেন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর বিগত ৪১ বছরের মধ্যে গত প্রায় ৪ বছর সময়কে (২১/০৮/২০১৬ হতে বর্তমান পর্যন্ত) দুর্নীতিমুক্ত উন্নয়ন ও অগ্রগতির সোনালী সময় বলে উল্লেখ করা যায়। কারণ এই সময়গুলোতে শিক্ষা, উন্নয়ন ও প্রশাসনিক ক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য অর্জিত হয়েছে। দুর্নীতির সকল দ্বার রুদ্ধ করা হয়েছে কঠোর হাতে।

ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারীর দৃঢ় নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল নির্মাণ, শহিদ মিনার নির্মাণ, বোটানিক্যাল গার্ডেন তৈরি, সুদৃশ্য লেকব্রিজ তৈরি, মসজিদের উন্নয়ন, প্রভোস্ট কোয়াটার তৈরি, শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পরিবহন সমস্যা দূরীকরণে নতুন বাস ও এসি কোস্টার ক্রয়, আবাসিক সমস্যা নিরসনে নতুন ছাত্র ও ছাত্রী হল নির্মাণ, শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসিক কোয়াটার নির্মাণসহ ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে। উপাচার্যের পরিকল্পনা ও উদ্যোগে বিভিন্ন বিভাগে সেসন জট দূর করে প্রায় শূণ্যের কোঠায় নিয়ে আসা হয়েছে। বাজেট ঘাটতি কমিয়ে আর্থিক ব্যবস্থাপনায় শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় কর্মসূচি সফল করতে ক্যাম্পাসে প্রতি বছর বৃক্ষ রোপণ, মশক নিধন ও পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের জন্য স্বাস্থ্যকর পরিবেশ নিশ্চিত করা হয়েছে। করোনা মহামারীকালে দরিদ্র কর্মচারী ও স্থানীয় অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে খাদ্যসহ সেনিটাইজিংয়ে সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নের রূপকার প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারীর এহেন সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি কুচক্রী মহল তাঁর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার প্রয়াসে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় যে অপপ্রচার চালাচ্ছে তার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. কাজী আখতার হোসেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ,বাঙালি জাতীয়তাবাদ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী ইবি শাপলা ফোরামের সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ রেজওয়ানুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সহসভাপতি প্রফেসর ড. মোহাঃ সাইদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ড. আবু হেনা মোস্তফা জামাল বিবৃতি প্রদান করেছেন।

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়ে আরও বিবৃতি দিয়েছেন অিফিসার্স এসোসিয়েশনের আহবায়ক মোঃ আলমগীর হোসেন খান ও সদস্য সচিব মোঃ আব্দুল হান্নান, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক (ভারঃ) ও প্রধান প্রকৌশলী (ভারঃ) যৌথভাবে, সহায়ক কর্মচারী সমিতির সভাপতি মোঃ আব্রাহাম লিংকন এবং সাধারণ কর্মচারী সমিতির সভাপতি মোঃ আতিয়ার রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহিনুর ইসলাম।

বিবৃতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুন্দর পরিবেশ অব্যাহত রাখার স্বার্থে মিডিয়াসহ সংশ্লিষ্ট সকল মহলের প্রতি অপপ্রচার বন্ধ করে দায়িত্বশীল আচরণের আহবান জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ। #

পছন্দের আরো পোস্ট