নানা কর্মসূচিতে জবি সাংবাদিক সমিতির বর্ষপূর্তি উদযাপন

জবি প্রতিনিধি।

নানা প্রতিকূলতা আর সম্ভাবনার মধ্য দিয়ে হাঁটি হাঁটি পা পা করে এগিয়ে যাচ্ছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি। শনিবার সংগঠনের ১৪তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মাধ্যমে উদযাপন করেছে সমিতির সদস্যরা। এর আগে গত ১৮ জুন থেকে জবিসাস প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আনুষ্ঠানিক কাউন্টডাউন শুরু হয়।

প্রতিবছর সংগঠনটি বিভিন্ন আয়োজনে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করে। তবে এই বছর করোনাভাইরাসের কারণে ভিন্ন আঙ্গিকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করে সংগঠনটি। এ উপলক্ষে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি, ভার্চুয়াল আড্ডা, কুইজ প্রতিযোগিতা ও ট্যালেন্ট হান্টের আয়োজন করেছে সংগঠনটি।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ভিডিও বার্তায় শুভেচ্ছা জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. কামালউদ্দিন আহমদ ও সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অলিউল্লাহ খান সোহরাব। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, রাজনৈতিক সংগঠন ও ব্যাক্তিবর্গ, বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন ও জবি সাংবাদিক সমিতির সাবেক নেতৃবৃন্দ শুভেচ্ছা জানান। শুভেচ্ছা বার্তায় সাংবাদিক সমিতির সত্য প্রকাশের যে যাত্রা তার ধারাবাহিকতা রক্ষা করার কথা তুলে ধরেন এবং নিরপেক্ষ ভাবে সংবাদ উপস্থাপন ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে কলম চলমান থাকার আহ্বান করেন তারা।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি সত্যনিষ্ঠ ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরব, ঐতিহ্য, শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবিসমূহ তুলে ধরছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন অনেক উন্নয়ন আছে যার সাথে সাংবাদিক সমিতির নাম জড়িয়ে আছে। আবার এমন অনেক সমস্যা আছে যা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেওয়ার পরও হয়তো প্রশাসন আমলে নেয়নি। উপরন্তু সমিতির প্রতি বিষোদগার করেছে। প্রশাসনের বিরাগভাজন হয়েছে বারবার। হামলা ও মামলার মুখোমুখি হতে হয়েছে সমিতির সদস্যদের। এতকিছুর পরও সাংবাদিক সমিতি কখনো সত্য প্রকাশে পিছিয়ে যায়নি। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের যাবতীয় অর্জন, সফলতা ও সমস্যা সততা ও নিষ্ঠার সাথে তুলে ধরার পাশাপাশি একদল সৎ, দক্ষ ও নিষ্ঠাবান দেশবরেণ্য সাংবাদিক তৈরীতে ভূমিকা রাখছে।

জবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি হুমায়ুন কবির হুমু বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতি ১৪ বছর শেষ করে ১৫ বছরে পা দিয়েছে। এই সংগঠনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি রক্ষার পাশাপাশি শিক্ষক শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারী সবার আস্থা, বিশ্বাসের একটি জায়গা হিসাবে দাঁড়িয়েছে। জবিসাস অতীতে শ্রদ্ধেয় অগ্রজদের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ন্যায্য আন্দোলনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পাশে থেকেছে। বর্তমানেও এই ধারা অব্যাহত আছে এবং আশা করি ভবিষ্যতেই থাকবে। জবিসাসের পক্ষ থেকে সবাইকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভেচ্ছা।

সাধারণ সম্পাদক লতিফুল ইসলাম বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির ১৪ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে সবাইকে শুভেচ্ছা। সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সকল সদস্য ও সাবেক নেতৃবৃন্দের প্রতি কৃতজ্ঞতা। যাদের পরিশ্রমে সাংবাদিক সমিতি বিশ্ববিদ্যালয়ের সকলের কাছে আস্থার প্রতিকে পরিণত হয়েছে। সমিতির সদস্যরা শুরু থেকেই দায়িত্বশীলতা ও পেশাদারিত্বের সাথে কাজ করে যাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাফল্য ও ইতিবাচক সংবাদগুলো যেমন দেশ ও জাতির কাছে তুলে ধরছে ঠিক তেমনি কোন অন্যায় ও দূর্নীতির সাথে আপোষ না করে তার গঠনমূলক সমালোচনা করছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির উত্তরাত্তর সফলতা অব্যাহত থাকবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. কামালউদ্দিন আহমদ বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সকল সদস্যকে শুভেচ্ছা। এখন আমরা একটি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছি। এ সময়ে মিডিয়া জগতের সকলেরই একটি বিশেষ দায়িত্ব আছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আজ একটি ঈর্ষণীয় অবস্থানে আছে। বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে এর অনেক সীমাবদ্ধতা আছে সত্য। বর্তমান উপাচার্যের নেতৃত্বে এই সীমাবদ্ধতা অতিক্রমের চেষ্টা অব্যাহত আছে। এই প্রচেষ্টায় সাংবাদিকদের ও ইতিবাচক ভূমিকা রাখা আবশ্যক। আশা করি মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ প্রেমিক সাংবাদিকবৃন্দ তাঁদের উপর অর্পিত দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করবেন।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালের ২০ জুন শিক্ষা, সততা, সাহসিকতা স্লোগান নিয়ে ১৯ জন সদস্য ও ৫ জন সহযোগী সদস্য নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি। দীর্ঘ এই সময়ে দক্ষ নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের নিকট আস্থার প্রতীক হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে সংগঠনটি।

পছন্দের আরো পোস্ট