গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনা শনাক্তকরণ কিট হস্তান্তর

মোঃ বরাতুজ্জামান স্পন্দন, গবি প্রতিনিধি।

সকল জটিলতার অবসান ঘটিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনা শনাক্তকরণ কিট সরকারের হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে। শনিবার (২৫ এপ্রিল) সকালে ধানমন্ডির গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কিট হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

এ সময় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি ডা. জাফরউল্লাহ চৌধুরী, গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগ ও কিট তৈরীর গবেষক দলের প্রধান ডা. বিজন কুমার শীল এবং কিট হস্তান্তরে আসা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নিজ প্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবিত কিট নিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আমাদের কিট শতভাগ সফল। দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে আমদের তৈরী কিট অনেক গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। এই কিট শুধু বাংলাদেশ নয় বিশ্বের বড় বড় দেশগুলোতেও সাপ্লাই দেওয়া হবে। আমাদের সক্ষমতা আরো বাড়ানো হবে। আপাতত আমরা প্রাথমিক অবস্থায় কাল থেকে ১০ হাজার কিট উৎপাদন শুরু করবো।

ডা. বিজন কুমার শীল বলেন, পৃথিবীর কোনো দেশই এককভাবে কোনো রোগকে শতভাগ শনাক্ত করতে পারেনা। এজন্য আমরা করোনা শনাক্তকরণে দুই ধরনের কিট তৈরী করেছি। এর একটি এন্টিজেন ডিটেকশন এবং অন্যটি এন্টিবডি ডিটেকশন। এর ফলে দুটো কিটের সমন্বয়ে আমরা শতভাগ রোগী শনাক্তকরণ কিট পেয়েছি।

তবে এই কিট সরকারের কাছে হস্তান্তরের কথা থাকলেও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল না সরকারের কোনো প্রতিষ্ঠান। এ বিষয়ে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আমাদেরকে সিডিসি কনফার্ম করেছিল আসবে। একমাত্র তারাই এসেছে। সিডিসিকেই আমরা দিয়ে দেব। বাকিদেরকে আমরা কালকে সরকারিভাবে প্রত্যেকের অফিসে পৌঁছে দেব। আমাদের দুঃখ, আপনাদের সামনে হস্তান্তর করতে পারছি না।

এর আগে গত ১৭ মার্চ দ্রুতগতিতে কাজ করবে এমন পদ্ধতির র‌্যাপিড ডট ব্লট কিট উদ্ভাবনের ঘোষণা দেয় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। এই কিট উদ্ভাবনকারী গবেষক দলের অন্যদের মাঝে ছিলেন ড. নিহাদ আদনান, ড. মোহাম্মদ রাঈদ জমিরউদ্দিন, ড. ফিরোজ আহমেদ ও সিঙ্গাপুরের একজন গবেষক।

কিট উদ্ভাবনের খবর প্রকাশ হওয়ার দুইদিন পরে ১৯ মার্চ কিট তৈরীর অনুমতি দেয় বাংলাদেশ সরকার। ৫ই এপ্রিল চীন থেকে কিট তৈরির কাঁচামাল আমদানি করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। এরপরে কিট হস্তান্তর করার জন্য কয়েক দফা তারিখ দেওয়ার পরও বৈদ্যুতিক গোলযোগ, কাঁচামালের অভাব সহ বিভিন্ন সমস্যায় হস্তান্তর সম্ভব হয়নি। এই কিট দিয়ে মাত্র ১৫ মিনিটেই করোনাভাইরাস শনাক্ত করা সম্ভব হবে বলেও জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

পছন্দের আরো পোস্ট