সেভ ইয়ুথ প্রমিজ ফেলোশিপ-২০২০

ঢাবি প্রতিনিধি।

ঢাবি ভিত্তিক সেভ ইয়ুথ প্রোগ্রামের আওতায় এবং ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন ফর ইলেক্টোরাল সিস্টেমস (আইএফইএস) এবং ইউকেএইড’র সহযোগিতায় বাংলাদেশের নয়টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩২ জন শিক্ষার্থীকে ৬ মাস মেয়াদী এই ফেলোশিপ দেওয়া হয়েছে।

সেভ ইয়ুথ প্রোগ্রামের মডারেটর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আইনুল ইসলাম বলেন, ‘এটি একটি সময়োচিত উদ্যোগ। সারাদেশে লকডাউনের কারণে এখন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছুটি চলছে। এই ফেলোশিপ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সামাজিক ভূমিকা পালনে উদ্বুদ্ধ করবে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের ভয়েসকে শক্তিশালী করবে এবং কোভিড-১৯ মোকাবিলায় তরুণদের সক্ষমতা বাড়াবে।

ফেলোশিপ প্রাপ্তদের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তিতলি দাস বলেন, ‘কোভিড-১৯ ফলে বিশ্বজুড়ে সৃষ্টি হয়েছে এখন অচলাবস্থা। সংকটপূর্ণ এই সময়ে সবার উচিত নিজের জায়গা থেকে এগিয়ে আসা। তাহলেই আমরা করোনা যুদ্ধে জয়ী হতে পারব। এই ফেলোশিপ কমিউনিটির জন্য কাজ করতে আমাকে উৎসাহিত করবে।’

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তুহিন চাকমা বলেন, ‘আমি পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চল নানিয়াচরের বাসিন্দা। আমার জন্য এটি একটি বড় সুযোগ। যার মাধ্যমে পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠীকে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় সচেতন করতে পারব।’

উল্লেখ্য, ফেলোশিপ প্রাপ্ত ৩২ জন শিক্ষার্থী ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, বরিশাল, জগন্নাথ, এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়সহ, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবং জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের বিভিন্ন বিভাগের ছাত্রছাত্রী।

উক্ত ফেলোশিপের অধীনে শিক্ষার্থীরা করোনাভাইরাস সংক্রান্ত মিথ্যা তথ্য, ঘৃণামূলক বক্তব্য এবং সোশ্যাল স্টিগমা প্রতিরোধে পাল্টা বার্তা প্রচারে বিশেষ ভূমিকা রাখবে। সার্বিকভাবে এই উদ্যোগের মূল লক্ষ্য তরুণদের বিভিন্ন সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণে অনুপ্রাণিত করা এবং মানবিক, বিজ্ঞানমনস্ক এবং গবেষণালব্ধ তথ্য প্রচারে উৎসাহিত করা।

পছন্দের আরো পোস্ট