সেলফ কুঅরানটীন-এর ডায়েরী-১

ড.মো.ইকবাল হোছাইন

সেলফ্ কুঅরানটীন (quarantine) শব্দের উচ্চরণ যেমন বিদঘুটে অর্থও তেমন কঠিন। এক কথায় নিজের ঘরে স্ব-প্রণোদিত জেল। সারা বিশ্বের প্রত্যেকটি ঘর অনেকটা এরূপ হয়ে গিয়েছে। করোনা নামক ভাইরাস সারা পৃথিবীর সব হিসেবে নিকেশ পাল্টে দিচ্ছে। প্রত্যেকটি রাষ্ট্র তাদের সাধ্য অনুযায়ী জনগণকে রক্ষার চেষ্টা করছে। প্রত্যেক ব্যক্তি তাদের সাধ্যমত ব্যক্তি , পরিবার বা সমাজকে রক্ষার চেষ্টা করছে। কষ্টের বিপরীতে এ এক মহান অর্জন। পৃথিবীতে এখনো মানবিকতা বেঁচে আছে।

আমাদের সীমাবদ্ধতা কতটুকু একটি ভাইরাস আমাদেরকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিল। অবাধভোগবাদ আর অস্ত্রের ঝনঝনানির পৃথিবীতে আবার কেমন জানি আল্লাহর অস্তিত্বের ব্যপারে দ্বিধাদ্বন্দের মানুষগুলো ফিরে আসছে। মিশরের এক সাবেক এমপি এক স্টেটাচে বলেছেন এ ভাইরাস মানুষকে আল্লাহর পথে ফিরিয়ে এনেছে। আমি এভাবে না বললেও এটাতো সত্য, জলে স্থলে এ মহা বিপর্যয়ের জন্যে মানব সৃষ্ট অপরাধগুলোই দায়ী।

এক নাস্তিক একবার খোলা আকাশের নিচে গিয়ে বলল, পৃথিবীর যত বৈষম্য সব কেবল ধর্মের কারণে। কোথায় তুমি ঈশ্বর? তোমাকে জবাব দিতে হবে। তখন গায়েবী আওয়াজ আসল, হে আমার প্রিয় সৃষ্টি! হয়ত তুমি আমাকে দোষারূপ করছ, তাই না? আমি তোমার প্রশ্ন আমলে নিয়েছি তবে একটি কথা জবাব দাও ? কোন ধর্ম কি বলেছে, বেশী করে মারণাস্ত্র বানাও? উগ্র জাতীয়তাবাদের নামে মানুষ হত্য করা? কোন ধর্ম কি মানুষ হত্যার কথা বলেছে? আমাকে দোষ দেওয়ার পূর্বে একটিবার উপরের প্রশ্নগুলোর জবাব দাও?

নাস্তিক চিন্তা করে তাইতো পুঁজিবাদ, ফ্যসিবাদ, সমাজবাদের নামে যত মারামারি হয়েছে এর কাছে ধর্মীয় বিবেদ তুচ্ছ। ধর্মকেতো ব্যবহার করেছে রাজনীতিবিদরাই। সেখানে ধর্মের সোল এজেন্টরা ছিল কেবল কেনা গোলাম! ভোগবাদের ধ্বজাধারীরা ট্যুরিস্ট অর্থ নীতির নামের বিপরীতে যৌনতার সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছে। প্রগতির লেবাসেে পৃথিবীতে যে অসভ্যতা হচ্ছে এর সাথেতো ধর্মের কোন সম্পর্ক নেই? কই করোনাকে ভাইরাসতো চোখে দেখি না? না দেখলে যদি ঈশ্বরকে অস্বীকার করি তাহলে করোনাকে স্বীকার করবো কেন?

তারপরেও করোনার ভয়ে নাস্তিক জড়োথরো হয়ে যায়। নীরব সাগরের উন্মুক্ত দিগন্তে তাকিয়ে থাকে আর চিন্তা করে আসলেইতো এ বিশাল পৃথিবীতে আমি অতি ক্ষুদ্র নগণ্য এক মানুষ। সামান্য করোনার কাছে অসহায় প্রানী হয়ে কিভাবে এ ভুল করছি। না,,না ভূল না আচ্ছা, আমি কি হেরে যাচ্ছি?….

 

অধ্যাপক ড. ইকবাল হোসেইন

লেখক: ড.মো.ইকবাল হোছাইন । ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে দাওয়াহ এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে অধ্যাপনা করছেন। সমসাময়িক বিষয় নিয়ে হাতেগোনা কয়েকজন লেখকের অন্যতম। উচ্চ পর্যায়ের সেমিনার, সিম্পোজিয়াম আর ওয়ার্কশপ নিয়ে নিত্য ছুটে বেড়ান দেশে বিদেশে । লেখালেখি বিস্তর। করোনার প্রাসঙ্গিক বিষয়ে তার তথ্যসমৃদ্ধ বিশ্লেষণ পাঠকদের কাছে উপাদেয় হবে বলেই আমাদের বিশ্বাস। ধারাবাহিক ও সংক্ষিপ্ত এ লেখাগুলো পড়তে সাথে থাকুন।

পছন্দের আরো পোস্ট