ড্যাফোডিলে করোনার প্রাদুর্ভাব ও প্রতিরোধ শীর্ষক সেমিনার

নিজস্ব প্রতিবেদক।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পাবলিক হেলথ বিভাগ এবং কার্ডিও কেয়ার স্পেশালাইজড এন্ড জেনারেল হাসপাতাল এর যৌথ আয়োজনে ‘করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও প্রতিরোধ’ শীর্ষক এক সেমিনার গত (২ মার্চ) রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইনস্টিটিউট অব এপিডেমিওলোজি ডিজিজ কনট্রোল অ্যান্ড রিসার্চের পরিচালক ও করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত বাংলাদেশের মুখপাত্র অধ্যাপক ড. মিরজাদি সাবরিনা ফ্লোরা। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইনস্টিটিউট অব এপিডেমিওলোজি ডিজিজ কনট্রোল অ্যান্ড রিসার্চের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এ এস এম আলমগীর।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম সভাপতিত্বে সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. এস এম মাহাবুব –উল হক মজুমদার, অ্যালাইড হেলথ সায়েন্স অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আহমদ ইসমাইল মোস্তফা ও সহযোগী ডিন অধ্যাপক ড. এ এন জাফর উল্লাহ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. মিরজাদি সাবরিনা ফ্লোরা বলেন, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জনসচেতনতা জরুরি। ইদানিং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করোনা ভাইরাস নিয়ে নানা গুজব ছড়িয়ে পড়েছে। এসব গুজবে কান না দিতে আহ্বান জানান ড. মিরজাদি সাবরিনা ফ্লোরা। তিনি বলেন, নির্ভরযোগ্য সূত্র থেকে তথ্য জানুন। অযথা গুজব ছড়িয়ে সমাজে আতঙ্ক ছড়াবেন না।

ড. মিরজাদি সাবরিনা ফ্লোরা আরও বলেন, করোনা ভাইরাস থেকে দূরে থাকার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে বারবার সাবান দিয়ে হাত ধোওয়া। হাঁচি, কাশির সময় সাবধান থাকা। এছাড়া পাবলিক প্লেস, বিশেষ করে বিপনী বিতানগুলোতে চলার সময় দরজার হাতল না ধরা, চলন্ত সিঁড়ির হাতল না ধরা এবং সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে হ্যান্ডশেক না করার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

করোনা মোকাবেলায় সরকার প্রস্তুত রয়েছে উল্লেখ করে ড. মিরজাদি সাবরিনা ফ্লোরা বলেন, অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে সরকার এবার অধিক সচেতন। করোনা মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্তৃতি গ্রহণ করা হয়েছে। সুতরাং আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

পছন্দের আরো পোস্ট