ড্যাফোডিলে শেষ হলো আইকনসিএস

নিজস্ব প্রতিবেদক।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের আয়োজনে দুই দিনব্যাপী ‘২য় ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড কম্পিউটার সায়েন্স (আইকনসিএস-২০২০)’ আজ শেষ হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়ায় আজ ১৬ ফেব্রুয়ারি সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিটিআরসির মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনরেল মোঃ মোস্তফা কামাল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেনড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসের পরিচালক প্রফেসর ড. মোস্তফা কামাল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. তৌহিদ ভূইয়া।

সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, চীন, সৌদি আরব, মালয়েশিয়াসহ বিশ্বের ২০টি দেশের সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞগণ ২৮১টি গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। সম্মেলনের অন্যতম উদ্দেশ্য হচ্ছে, দ্রুত সম্প্রসারণশীল সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ে অধিকতর গবেষণা করা, প্রবন্ধ প্রকাশ করা, গবেষণার জন্য ফান্ড তৈরি করা ইত্যাদি। সম্মেলনে উপস্থাপিত প্রবন্ধগুলো পরবর্তীতে স্প্রিংজার জার্নালে প্রকাশিত হবে এবং স্কোপাস ইনডেস্কড করা হবে।

সম্মেলনে প্রথম বেস্ট পেপার এওয়ার্ড পায় চীনের ইউনিভার্সিটি অব ইলেক্ট্রনিক সায়েন্স এন্ড টেকনোলজির শিক্ষক গোলাম মোক্তাদির নাইম, মিংউ ফ্যান, সানজুন লি এবং খলির রহমান রচিত “ এ মোডিফাইড পার্টিকেল সোয়ার্ম অপটিমাইজেশন ফর অটোনোমাস ইউএভি পাথ প্ল্যানিং ইন থ্রিডি এনভারনমেন্ট” প্রবন্ধ। দ্বিতীয় কেস্ট পেপার এওয়ার্ড পাওয়ার গৌরব অর্জন করে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষক সাবরিনা হক, তাসনিম রহমান, আশিফ খান শাকির, মোঃ খলিদ বিন বদরুজ্জামান বিপ্লব, ফারহান এনন হিমু এবং দীপ্ত দাস রচিত “এক্সটেক্ট বেইজডসেন্টিমেন্ট এনালাইসিস ইন বাংলা ডাটাসেট বেইজড অন এসপেক্ট টার্ম এক্সট্রাকশন” প্রবন্ধ।

তৃতীয় সেরা বেস্ট পোর এওয়ার্ড পাওয়ার গৌরব অর্জন করে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষ মোঃ কাওসার, নুসরাত জাহান প্রত্যাশা, অনিক তাহবিলদার ও এম বাবুল ইসলাম রচিত “মেশিন লার্নিং-বেইজড রিকোমেন্ডেশন সিস্টেমস ফর দি মোড অফ চাইল্ড বার্থ” প্রবন্ধ। আর নসাইবার সিকিউরিটি বিষয়ে ‘বেস্ট পেপার এওয়ার্ড’ লাভ করে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষক মুনিরা তাবাস্সুম, মোঃ আফজাল হোসেন, আশরাফিয়া এশা ও মোঃ মারুফ হাসান রচিত “এন এনহেনসমেন্ট অফ কারবোরেস ইউজিং বায়োমেট্রিক টেমপ্লেট এন্ড স্টিগ্যানোগ্রাফী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিটিআরসির মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মোস্তফা কামাল বলেন, ইন্টারননেট এবং কম্পিউটার ছাড়া আমাদের জীবন এখন কল্পনাও করা যায় না। আমরা সম্পূর্ণভাবে প্রযুক্তিনির্ভর জীবনে প্রবেশ করেছি। সারা পৃথিবীর মানুষ এখন প্রবেশ করেছে জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতির যুগে। একইসঙ্গে আমরা প্রবেশ করেছি প্রযুক্তির নিরাপত্তা হুমকির মধ্যেও। সুতরাং আমাদেরকে প্রযুক্তিময় জীবনের নিরাপত্তার জন্য পথ আবিষ্কার করতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মোস্তফা কামাল আরও বলেন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, রোবটিক্স, আইওটি, মেশিন লার্নিং, ডেটা মাইনিং, বিগ ডেটা, ব্লক চেইন ইত্যাদি আমাদের জীবনকে আমূল বদলে দিয়েছে। এখন আমাদের দরকার সাইবার সচেতনতা। তা না হলে প্রযুক্তি আমাদের জীবনকে দুর্বিসহ করে তুলবে। এসময় তিনি ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিকে ধন্যবাদ জানান এমন একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করার জন্য।

এর আগে ১৫ ফেব্রুয়ারি প্রধান অতিথি হিসেবে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ডিজিটাল সিকিউরিটি এজেন্সি বাংলাদেশের মহাপরিচালক মো. রেজাউল করিম। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অস্ট্রেলিয়ার ডেকিন ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক জেমাল আবাওয়াজি, অস্ট্রেলিয়ার চার্লস ডারউইন ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক মামুন আলাজব এবং তুরস্কের কারবুক ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. অগুজ ফিনডিক। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইউসুফ এম ইসলাম, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. এস এম মাহাবুব-উল- হক মজুমদার। সভাপতিত্ব করেন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. তৌহিদ ভূইয়া।

উল্লেখ্য,ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড কম্পিউটার সায়েন্স-আইকনসিএস এর প্রথম সম্মেলনটি ২০১৮ সালে তুরস্কের কারাবুক বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

পছন্দের আরো পোস্ট