কেন্দ্রীয়ভাবে ভর্তি পরীক্ষা আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকেই

দেশের সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকেই কেন্দ্রীয়ভাবে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আগামী মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে কীভাবে ও কোন পদ্ধতিতে এ পরীক্ষা হবে, সে কাজ শুরু হবে। তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েটসহ বড় চারটি বিশ্ববিদ্যালয় এখনই এ প্রক্রিয়ায় আসবে কি না, সে ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানায়নি। তারা বলেছে, তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এ বিষয় নিয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানাবে।

আজ বুধবার আগারগাঁওয়ে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনে (ইউজিসি) অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত হয়।বৈঠক শেষে ইউজিসির চেয়ারম্যান কাজী শহীদুল্লাহ বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় দ্বিমত পোষণ করেনি। তারা বলেছে, প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

বৈঠকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি), জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি), চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি), রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি), বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়সহ (বুয়েট) ১২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে ঢাবি উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, তাঁদের বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সভা করে ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।একই ধরনের কথা বলেছেন চবি, জাবি ও বুয়েটের উপাচার্যরা।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার ২৮টি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা সভা করে কেন্দ্রীয়ভাবে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়ে একমত হন। আর ভর্তি পরীক্ষা নভেম্বরের মধ্যে সম্পন্ন করার ব্যাপারে একমত হন।

তারও আগে গত ২৩ জানুয়ারি ইউজিসির এক সভায় সমন্বিতভাবে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। এখন সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার নাম পরিবর্তন করে এটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সমূহে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা’।

পছন্দের আরো পোস্ট