স্কোপাস ইনডেক্সড গবেষণায় ড্যাফোডিল প্রথম

নিজস্ব প্রতিবেদক।

স্কোপাস ইনডেক্সড (অধিভূক্ত) গবেষণাপত্রের ভিত্তিতে ২০১৯ সালে বাংলাদেশের সকল সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে পঞ্চম এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। স্কোপাসের ওয়েবসাইট থেকে এ তথ্য জানা গেছে। ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ তারিখে ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী ২০১৯ সালে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির গবেষণা পত্র প্রকাশনা সংখ্যা ২৮০ টি। একই সময়ে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা পত্র প্রকাশনা সংখ্যা ২৬৫ এবং নর্থ সাউথ বিশ্বব্যিালয়ের গবেষণা পত্র প্রকাশনা সংখ্যা ২১৬।

এর আগে বৈজ্ঞানিক গবেষণাপত্র প্রকাশের দিক থেকে ২০১৯ সনে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। ELSEVIER এর ‘স্কোপাস ডাটাবেইজ’-এর বিভিন্ন উপাত্ত বিশ্লেষণ করে গত ৬ জানুয়ারি এ তথ্য প্রকাশ করেছিল বাংলাদেশের গবেষণা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণকারী ম্যাগাজিন ‘সায়েন্টিফিক বাংলাদেশ’। বৈজ্ঞানিক গবেষণাপত্র প্রকাশের ভিত্তিতে ওই তালিকা করা হয়। তালিকায় দেশের সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ২০১৯ সনে সম্মিলিতভাবে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অবস্থান ছিল অষ্টম।

এছাড়াও কিউএস (কোয়াককোয়ারেল সাইমন্ডস) এশিয়া ইইউনিভার্সিটি র‌্যাংকিং-২০১৯ এ এশিয়ার ৫০০ সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় অন্তর্ভূক্তিসহ বাংলাদেশের পাবলিক এবং প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ষষ্ঠ স্থান অর্জন ছাড়াও টাইমস হায়ার এডুকেশন (টিএইচই) ইউনিভার্সিটি ইম্প্যাক্ট র‌্যাংকিং ২০১৯ এ মর্যাদাপূর্ণ অবস্থান অর্জন করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।

পছন্দের আরো পোস্ট