খুবিতে নতুন গবেষণা প্রকল্পের উপর প্রারম্ভিক কর্মশালা

খুবি প্রতিনিধি।

গতকাল (২৮ জানুয়ারি ২০২০) খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় অঞ্চলে যথাযথ প্রক্রিয়ায় ভেড়ার জাত উন্নয়ন ও প্রতিপালনের মাধ্যমে উৎপাদন বৃদ্ধি শীর্ষক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. সরদার শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান।

কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জীব বিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ রায়হান আলী, গবেষণা সেলের পরিচালক প্রফেসর এ কে ফজলুল হক এবং জেলা পশুসম্পদ কর্মকর্তা এস এম আউয়াল হক। পরে টেকনিক্যাল সেশনে সভাপতিত্ব করেন এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. মোঃ সারওয়ার জাহান এবং প্রকল্পের প্রারম্ভিক বিষয়সহ উদ্দেশ্য ও কারিগরি দিক নিয়ে মূল নিবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রকল্পের প্রিন্সিপাল ইনভেস্টিগেটর প্রফেসর ড. সরদার শফিকুল ইসলাম।

প্রকল্পের প্রেক্ষিত তুলে ধরে সূচনা বক্তব্য রাখেন কো-ইনভেস্টিগেটর প্রফেসর ড. মোঃ সফিকুল ইসলাম। মূল নিবন্ধে গবেষণা প্রকল্পের বিভিন্ন কলাকৌশল তুলে ধরে বলা হয় ৩ বছর মেয়াদি সরকারি সহায়তায় খুলনার দাকোপ, সাতক্ষীরার শ্যামনগর এবং বাগেরহাটের মংলা উপজেলায় প্রাথমিক জরিপ চালানোসহ চুয়াডাঙ্গা-কুষ্টিয়া থেকে গাড়ল জাতের ভেড়ার সাথে স্থানীয় ভেড়ার প্রজননের মাধ্যমে জাত উন্নয়ন, খাদ্য ও প্রতিপালনের মাধ্যমে মাংসের উৎপাদন বৃদ্ধি ও উকূলীয় জলবায়ু ও পরিবেশের সাথে অভিজোযনসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ের উপর এই প্রকল্পে গবেষণা পরিচালনা করা হবে।

প্রারম্ভিক এই কর্মশালায় অভিলক্ষ্য ব্যাখ্যা করে বলা হয় ভেড়ার চাষের মাধ্যমে মাংসের উৎপাদন বৃদ্ধি, গ্রামীণ জনপদের কর্মসংস্থান এবং মাংস রপ্তানির মাধ্যমে আর্থ-সামাজিক অবস্থার পরিবর্তন ঘটানো সম্ভব হবে। এ সময় সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং প্রকল্প এলাকার কৃষক ও খুলনা পশুসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পছন্দের আরো পোস্ট