ভারতের গুজরাটে বাংলাদেশি অধ্যাপকের কৃতিত্ব

নিজস্ব প্রতিবেদক।

গুজরাটের পারুল ইউনিভার্সিটির উদ্যোগে গত ১৯-২১ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখ অনুষ্ঠিত হয় “International Conference on Sustainable Librarianship: Reimagining & Reengineering, Libraries”। সম্মেলনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মোঃ নাসির উদ্দিন কি-নোট স্পিকার হিসেবে যোগ দেন। তাঁর কি-নোটের শিরোনাম ছিল “Digital School Libraries in Bangladesh: A role model for changing lives of the extreme poor children”। কিভাবে স্কুল লাইব্রেরি বাংলাদেশের হত-দরিদ্র শিশুদের জীবন পরিবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে প্রফেসর নাসিরের এবারের উপস্থাপনায় তার একটি সচিত্র বর্ণনা তুলে ধরা হয়। তাঁর কি-নোট পেপারটি দারুণভাবে সমাদৃত হয়।

গুজরাটের পারুল ইউনিভার্সিটির কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামে ‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব সোস্যাল সায়েন্স রিসার্চ’ কর্তৃক আয়োজিত ৩ দিন ব্যাপী এই সম্মেলনে ভারতের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য ও বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত তথ্যবিজ্ঞানীগণ সর্বমোট ৭২টি নির্বাচিত গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। সম্মেলনে প্রায় ৪ শতাধিক তথ্য পেশাজীবী অংশ নেন।

কি-নোট স্পিকার ছাড়াও প্রফেসর ড. মোঃ নাসির উদ্দিন একাধিক সেশনের চেয়ার ও প্যানেল ডিসকাশন-এ অংশগ্রহণ করেন। প্রফেসর ড. মোঃ নাসির উদ্দিন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও স্নাতকপূর্ব শিক্ষা বিষয়ক স্কুলের ডিন হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
এ সুনাম অর্জনের জন্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ তাঁকে অভিনন্দন জানান এবং ভবিষ্যতে আরো নতুন বিষয়ে গবেষণার উৎসাহ যোগান।

উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে ২০১৫ সালে সেপ্টেম্বরে শ্রীলংকার রাজধানী কলম্বোতে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে ৩০টি দেশের গবেষণা প্রবন্ধের মধ্যে প্রফেসর ড. মোঃ নাসির উদ্দিন এর প্রবন্ধটি শ্রেষ্ঠ পুরস্কার লাভ করে। এছাড়াও তিনি তথ্য পেশার ওপর এ পর্যন্ত প্রায় ৫৫টি গবেষণা প্রবন্ধ রচনা করেন এবং ২৩টি দেশে বিভিন্ন কনফারেন্স ও ভিজিটিং ফ্যাকাল্টিসহ নানা পেশাগত কাজে অংশগ্রহণ করেন। তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রকাশিত জার্নালের সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করছেন।

পছন্দের আরো পোস্ট