বশেমুরবিপ্রবিতে বিজিই শিক্ষার্থীদের আলোক প্রতিবাদ

ফয়সাল হাবিব সানি,বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি

আন্দোলনের জোয়ারে বারবারই পত্রিকার শিরোনাম হতে দেখা যাচ্ছে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়কে (বশেমুরবিপ্রবি)। আবারও আন্দোলনে উত্তাল হয়েছে এই বিদ্যাপীঠ। এবার চেয়ারম্যানের পদত্যাগ চান ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের (বিজিই) শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য, ১৭ ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) সকাল ১০টা দুপুর ১টা অবধি নিজেদের ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করে চেয়ারম্যান পদত্যাগের দাবিতে নিজ বিভাগের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন তারা। এসময় তাদের হাতে চেয়ারম্যানের পদত্যাগের পক্ষে বিভিন্ন ফেস্টুন, ব্যানার লক্ষ্য করা যায়।

শিক্ষার্থীরা ওই বিভাগের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল জোবায়েরের বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ তুলে ধরেন এবং তারা তাদের কর্মসূচিকে যৌক্তিক দাবি করে তার বিরুদ্ধে অকারণে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান, ব্যক্তিগত ক্রোধ থেকে ফলাফলের উপর প্রভাব বিস্তার, শিক্ষার্থীদের ন্যায্য বাক-স্বাধীনতা হরণ, মানসিকভাবে হয়রানি, ল্যাব প্রতিষ্ঠায় ব্যর্থতার পরিচয় এবং নৈতিক অবক্ষয়সহ মোট ৮টি অভিযোগ পেশ করেন।

এদিকে, গতকাল শুক্রবার (২০ ডিসেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীর মিনারের সামনে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে ওই চেয়ারম্যানের পদত্যাগ দাবিতে মৌন প্রতিবাদ জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের উক্ত বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এসময় অভিযুক্ত চেয়ারম্যানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়ে লেখাপড়া টোয়েন্টিফোর ডট নেটকে বলেন, আমাদের কিছু সমীবদ্ধতার কারণেই তাদের সকল দাবিগুলো আমরা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছি। আর আমার বিরুদ্ধে যে শিক্ষার্থীদের অ্যাকাডেমিক ব্যক্তিগত আক্রমণ, ছাত্রীকে মানসিকভাবে হয়রানি করা বিষগুলো আনা হয়েছে তা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক, মিথ্যা ও বানোয়াট।

কিন্তু বিজিই বিভাগের একাধিক শিক্ষার্থী বলেন, তিনি ল্যাব প্রতিষ্ঠায় ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন এবং বিভাগে পর্যাপ্ত পানি নেই কারণ দর্শিয়ে বারবার আমাদের ল্যাব ক্লাস থেকে বঞ্চিত করেছেন। তার বিরুদ্ধে ছাত্রীকে রুমে ডেকে নিয়ে অন্যান্য শিক্ষকের সামনে ৩/৪ ঘণ্টা যাবৎ মানসিকভাবে হয়রানির বিষয়ও লেখাপড়া টোয়েন্টিফোর ডট নেটকে অবগত করেন তারা। তাকে একজন সৈরাচারী চেয়ারম্যান হিসেবেও অভিহিত করেন ওই বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

চেয়ারম্যানের পদত্যাগ না করা পর্যন্ত সকল ধরণের ক্লাস পরীক্ষা বর্জন এবং তাদের আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন বলে জানান ওই বিভাগের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থীরা। তারা অতি সত্ত্বর এই সৈরশাসক চেয়ারম্যানের পদত্যাগের জন্য প্রশাসনের কাছে উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন।এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত টানা পাঁচদিন বিজিই শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে।

পছন্দের আরো পোস্ট