টুইটারে বড়সড় পরিবর্তন

নিজস্ব প্রতিবেদক।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কোনো তথ্য ছড়িয়ে পড়তে এখন খুব বেশি সময় লাগে না। আর এগুলোর মধ্যে কোন তথ্য সঠিক কিংবা ক্ষতিকর নয়, তা চিহ্নিত করা কঠিন হয়ে পড়ছে। বহু চেষ্টার পরও ভুয়া কিংবা নেতিবাচক বক্তব্য থামাতে অনেকটাই ব্যর্থ বড় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলো। এর কারণ হিসেবে মাধ্যমগুলোর প্রচলিত ব্যবস্থাপনা সেকেলে হয়ে গেছে বলে মনে করেন টুইটারের প্রধান নির্বাহী জ্যাক ডোরসি। তাই মাধ্যমগুলোর তথ্য বিতরণ পদ্ধতিতে বড়সড় পরিবর্তন আনার উদ্যোগ নিয়েছেন তাঁরা। গত বুধবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের তথ্য বিন্যাসের জন্য নতুন পদ্ধতি বের করার একটি গবেষণা প্রকল্প চালু করে টুইটার। প্রকল্পটির ছদ্মনাম তারা রেখেছে ‘ব্লুস্কাই’।

টুইটারকে ভিন্নমাত্রা দিতে চালু করা হয় প্রকল্পটি। প্রতিষ্ঠানটির অর্থায়নে গবেষণা কাজ চালু হয়েছে। পাঁচ সদস্যের গবেষক দলটিতে রয়েছেন সফটওয়্যার নির্মাতা, প্রকৌশলী ও নকশাকার। দলটির উদ্দেশ্য কেবল টুইটারের জন্য নয়, সব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের জন্যই একটি উন্মুক্ত ও বিকেন্দ্রিক মান খুঁজে বের করা। তবে প্রকল্পটি সফল হলে টুইটারের বর্তমান পরিচালনা ব্যবস্থা একদম আমূল বদলে যাবে। সেই সঙ্গে সব মাধ্যমের জন্য নতুন একটি পদ্ধতি উপস্থাপন করবে।

ব্লুস্কাই প্রকল্পটির মূল ভাবনা হিসেবে ই-মেইলকে রাখা হয়েছে। ই-মেইল একজন ব্যবহারকারীর জন্য একটি উন্মুক্ত প্রটোকল হিসেবে কাজ করে। অর্থাৎ, প্রত্যেক ব্যবহারকারী তাঁর নিজস্ব সেবার ধরন তৈরি করতে পারে। তার ই-মেইলটি কীভাবে কাজ করবে সেটিও নির্ধারণ করতে পারে। ঠিক একইভাবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটিও প্রত্যেক ব্যবহারকারীর জন্য আলাদা হবে। ব্যবহারকারী তার সুবিধা অনুযায়ী মাধ্যমগুলোর সেবা গ্রহণ করতে পারবে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোর জন্য এমন একটি প্রটোকল তৈরি করতেই কাজ করবে ব্লুস্কাই। তবে ফলাফলে পৌঁছাতে কয়েক বছর লেগে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

সূত্র: বিজনেস ইনসাইডার

পছন্দের আরো পোস্ট