আমার স্বপ্ন আমার বিদ্যালয়

মাসুদা পারভীন।

আমি একজন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক,এই পেশায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে পেরে আমি গর্ব বোধ করি।একটি শিশুকে আদর্শ মানুষ ও সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার কঠিন দায়িত্ব আমার উপর।নিজের সবটুকু দিয়ে আপ্রান চেষ্টা করি শিশুদের শিক্ষাজীবনের ভিত্তিটা মজবুত করতে।

আমার বিদ্যালয়ের প্রতিটি শিক্ষার্থীকে মানুষের মতো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলাই এখন আমার স্বপ্ন। এই স্বপ্নপূরণের জন্য শুধু যে শতভাগ শিক্ষকেরই ভূমিকা রয়েছে তা কিন্তু নয় এর অনেকটাই নির্ভর করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিবেশ এবং কার্যক্রমের উপর।

বর্তমানে বিদ্যালয়গুলোতে বিভিন্ন সৃজনশীল কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়ে থাকে শিশুদের মেধা এবং মননশীলতার পরিপূর্ণ বিকাশ সাধনের উদ্দেশ্যে। সে জন্য চাই বিদ্যালয়ের উপযুক্ত পরিবেশ, শিক্ষকের সৃজনশীল মনোভাব এবং আন্তরিকতা।

আমার বিদ্যালয়টি মাত্র কয়েক বছর হয় জাতীয়করন হয়েছে।এখানে আমি কয়েকমাস হলো যোগদান করেছি।যোগদানের পর কয়েকদিনের মধ্যেই আমি বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের এতোটাই কাছের হয়ে গেছি যে ওরা ওদের সব আবদার আমার কাছে বলে কারন এর পূর্বে কোন শিক্ষক ওদের এতোটা নিকটে আসেনি।ওদের কচি মুখগুলো আর ওদের ভালোবাসা আমার শিক্ষকতা জীবনের প্রেরণা।

আমার স্বপ্ন এই বিদ্যালয়টিকে একদিন আদর্শ বিদ্যলয় হিসেবে এবং উপজেলার শ্রেষ্ঠ বিদ্যালয়ে রুপদান করবো। এখানে থাকবে একটি মনরোম ফুলের বাগান যা থেকে শিশুরা ফুলের শুভ্রতা আর পবিত্রতার শিক্ষা নেবে। থাকবে দোকানদার বিহীন সততার দোকান যেখান থেকে শুশুরা নেতিক ও মানবিক গুনাবলী শিখবে। প্রতি মাসে প্রকাশিত হবে দেয়ালিকা যা শিশুদের সৃজনশীলতার বিকাশ ঘটাবে।থাকবে লাইব্রেরী, জানতে চাই কর্নার,,লাংগুয়েজ ক্লাব, সুসজ্জিত শ্রেনিকক্ষ, উপকরণ কক্ষ,মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম ইত্যাদি।

মাসুদা পারভীন। সহকারী শিক্ষক। ডাং মড়কা বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,দৌলতপুর, কুষ্টিয়া

পছন্দের আরো পোস্ট