গেট ইন দ্যা রিং ২০১৯ এর চ্যাম্পিয়ন ‘ইশারা’

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে গতকাল (শনিবার)১২ অক্টোবর ২০১৯ ঢাকায় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আয়োজনে তৃতীয়বারের মত অনুষ্ঠিত হলো ‘গেট ইন দ্যা রিং- ২০১৯’ -এর গ্র্যান্ডফিনালে। ২০১৯ এর গেট ইন দ্যা রিং এর চ্যাম্পিয়ন হয় ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী কাজী রাকিবুর রহমান ও শাহরিয়ার আল মামুনের ‘ইশারা’ প্রজেক্ট চ্যাম্পিয়ন দল গ্লোবাল মিট আপের চূড়ান্ত পর্বে প্রতিযোগীতার সুযোগ পাবে। গেট ইন দ্যা রিং এর এবারের অর্গানাইজিং পার্টনার ছিল ফ্রেডরিক ন্যূম্যান ফাউন্ডেশন (এফএনএফ) এবং আর টিভি।

রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও এর বলরুমে আয়োজিত গ্র্যান্ড ফিনালে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইসিটি ডিভিশনের প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, এমপি। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রহিম আফরোজ বাংলাদেশ লিমিেিটডের পরিচালক নিয়াজ রহিম, ড. নাজমুল হোসেন, কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ ফ্রেডরিক ন্যূম্যান ফাউন্ডেশন (এফএনএফ), আর টিভি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক রহমান ও বাংলাদেশস্থ জার্মান দূতাবাসের উন্নয়ন সহযোগী বিভাগের প্রধান এনড্রিয়াস হার্টম্যান।

প্রতিযোগিতায় বিচারক প্যানেলের সদস্য হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট ডেভেলাপমেন্ট অথরিটি (বিডা) এর সাবেক নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব আবদুর রহিম খান, প্রিমিয়ার ব্যাংকের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোঃ তারিক উদ্দিন, আনোয়ার গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজের জুট অটোমোবাইলস্ ও রিয়েল এস্টেট ডিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসেন খালেদ, কানাডার সেন্ট ফ্র্যান্সিস জেভিয়ার ইউনিভার্সিটির ওমেন্স লিডারশীপ এন্ড জেন্ডার স্পেশালিষ্ট নাইমা ইমাম চৌধুরী ।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন স্বনামধন্য কোম্পানির মালিক এবং সিইও উপস্থিত ছিলেন।

গত ২৭ জুলাই ২০১৯ তারিখ থেকে শুরু হয়ে ৫টি বিভাগীয় পর্যায়ের শেষে ব্যাটেলের মাধ্যমে ১৮০টি দল থেকে ১৬ টি দল চূড়ান্ত পর্বের জন্য (ফাইনালিস্ট) নির্বাচিত হয়। এরপর ১৬টি দল থেকে নির্বাচন করে ফাইনালে ‘ইশারা’ দল চ্যাম্পিয়ান হয়ে গ্লোবাল মিট আপের ফাইনালে অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, নিজেদেরকে মেধাবী জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। কারণ, সারা বিশ্বে এখন অস্ত্রের লড়াই নয়, বরং মেধার লড়াই চলছে। আর সেই লড়াইয়ে জয়ী হওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন বলে মন্তব্য করেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, একটি মেধাভিত্তিক ও প্রযুক্তিবান্ধব প্রজন্ম গড়ে তোলার জন্য বাংলাদেশ সরকার যে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সেই প্রচেষ্টাকে বেগবান করতে গত তিন বছর ধরে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি গেট ইন দ্যা রিংয়ের মতো আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে যাচ্ছে। এজন্য তিনি ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান।

বেশি বেশি উদ্যোক্তা তৈরির জন্য চারটি জিনিসের প্রয়োজন উল্লেখ করে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, উদ্যোক্তাবান্ধব পরিবেশ, প্রয়োজনীয় উপকরণ, পরামর্শ ও প্রাথমিক পুঁজি দিতে পারলে বাংলাদেশে হাজার হাজার উদ্যোক্তা তৈরি করা সম্ভব। আর সেই লক্ষকে সামনে রেখেই সরকার একটি ইনভেস্টমেন্ট গাইডলাইন তৈরি করছে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী পলক। শুধু তাই নয়, আগামী বছর থেকে সরকারের আইসিটি ডিভিশন ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী প্রতিষ্ঠান হয়ে গেট ইন দ্যা রিং আয়োজন করবে বলে ঘোষণা দেন তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোঃ সবুর খান বলেন, দেশে নতুন নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টির লক্ষ্যে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির এন্ট্রাপ্রিনিউরশীপ বিভাগ ও বাংলাদেশ ভেঞ্চার ক্যাপিটাল নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে এবং সবসময় প্রয়োজনীয় মনিটরিং ও পরামর্শ দিয়ে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকের এ প্রতিযোগিতার আয়োজন। তিনি প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারীদের দৃঢ় মনোবল ও আস্থা নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি আর্ন্ত্জাতিক পরিমন্ডলে শক্ত নেটওয়ার্ক তৈরীর আহ্বান জানান।

পছন্দের আরো পোস্ট