জেনে নিন জবি ভর্তি পরীক্ষার বিস্তারিত

সাইদুল ইসলাম,জবি প্রতিনিধিঃ 

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা ২০১৯-২০
☆ সেকেন্ড টাইম নেই।শুধু মাত্র যারা ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে তারাই আবেদন করতে পারবে। তবে প্রার্থীর এসএসসি পাশের বছর ২০১৬/২০১৭ এর যেকোনো একটি হলেই চলবে। সে মোতাবেক যদি কোনো শিক্ষার্থী ২০১৬ সালে এসএসসি পাশ করে থাকে কিন্তু কোনো কারণে ২০১৮ সালে পাশ করতে না করে ২০১৯ সালে পাশ করে অথবা ২০১৮ সালের রেজাল্টে অসন্তুষ্ট হয়ে ২০১৯ সালে ইম্প্রুভমেন্ট পরীক্ষা দিয়ে পাশ করে তাহলেও সে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে। ইম্প্রুভমেন্টের ক্ষেত্রে ঐ প্রার্থী ২০১৮ সালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলেও এবং ২০১৯ সালের এইচএসসি ইম্প্রুভমেন্ট পরীক্ষায় ফলাফল উন্নীত না হলেও ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে। তবে ভর্তি আবেদন ২০১৯ সালের রোল নম্বর উল্লেখ করতে হবে।

☆ তিনটি ইউনিট
.
ইউনিট-১: বিজ্ঞান
ইউনিট-২: মানবিক
ইউনিট-৩: ব্যাবসা

.☆ সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা এবং ফিল্ম বিষয়ের জন্য সবাই আবেদন করতে পারবে। এই বিষয়গুলোর কোনো লিখিত পরীক্ষা হবে না। শুধু মাত্র ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমেই যোগ্যতা যাচাই করা হবে।

☆ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় বিভাগ পরিবর্তনের জন্য আলাদা কোনো ইউনিট নেই। তবে একজন শিক্ষার্থী একটি ইউনিটে পরীক্ষা দিয়েই বিশ্ববিদ্যালয়ের যতগুলো বিষয়ে পড়ার সে যোগ্য সবগুলোই চয়েস দিতে পারবে।

☆আবেদন যোগ্যতাঃ
.
ইউনিট-১: ৮.০০ (কোনোটিতে ৩.০০ এর কম নয়)
ইউনিট-২: ৭.০০ (কোনোটিতে ৩.০০ এর কম নয়)
ইউনিট-৩: ৭.৫০ (কোনোটিতে ৩.০০ এর কম নয়)
সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা, ফিল্মঃ ৭.০০ (কোনোটিতে ২.৫০ এর কম নয়)

ইউনিট-১ এ আবেদন করতে পারবেঃ এইচএসসি (বিজ্ঞান ও ভোকেশনাল) এবং আলিম (বিজ্ঞান) উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা।
.
ইউনিট-২ এ আবেদন করতে পারবেঃ এইচএসসি (মানবিক, সঙ্গীত, গার্হস্থ্য অর্থনীতি) এবং আলীম (সাধারণ ও মুজাব্বিদ) উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা
.
ইউনিট-৩ এ আবেদন করতে পারবেঃ এইচএসসি (বাণিজ্য শাখা, বিএম শাখা), ডিপ্লোমা ইন বিজনেস স্টাডিজ (DIBS) এবং ডিপ্লোমা ইন কমার্স উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা।
.
সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা ও ফিল্মে আবেদন করতে পারবেঃ সকল শাখা থেকে এইচএসসি ও আলীম উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা।

.☆আবেদন প্রক্রিয়া

প্রাথমিক আবেদন ফি ১০০ টাকা, যা bkash, SureCash বা Roket এর মাধ্যমে প্রধান করা যাবে। প্রাথমিক ভাবে আবেদনকৃত প্রার্থীদের মধ্য থেকে জিপিএ অনুযায়ী প্রথম ২৫ হাজার জনের তালিকা প্রকাশ করা হবে। তাদেরকে এসএমএসও দেওয়া হবে। ৩০ হাজার তম প্রার্থীর সমমান জিপিএ ধারীরাও তালিকায় থাকবে। এই তালিকার প্রার্থীদেরকে আবেদন নিশ্চায়নের জন্য আরেকটি আবেদন করতে হবে। দ্বিতীয় এই আবেদনের ফি ৫০০ টাকা।
.
☆জিপিএ গণনা

এএসসি (৪র্থ বিষয়সহ) x ২.৪০
এইচএসসি (৪র্থ বিষয়সহ) x ৩.২০
.মোটঃ২৮

সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা ও ফিল্মঃ
এসএসএসিx৪ (৫x৪=২০)
এইচএসসিx৬ (৫x৬=৩০)
মোটঃ ২০+৩০=৫০
.
☆মানবন্টন

ইউনিট ১: পদার্থ+রসায়ন+গনিত/­জীব প্রতিবিষয় থেকে ৬ টি করে ২৪ টি প্রশ্ন থাকবে। ৩*৬=১৮ টির উত্তর করতে হবে। প্রতিপ্রশ্নের মান ৪।
পদার্থ+রসায়ন+গনিত/­জীব=২৪+২৪+২৪=৭২
.
ইউনিট ২: বাংলা+ইংরেজি+সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ, আন্তর্জাতিক, বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক)
২৪+২৪+২৪=৭২
.
ইউনিট ৩: হিসাব বিজ্ঞান + ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা, ব্যবসায় নীতি ও প্রয়োগ, গাণিতিক বুদ্ধিমত্তা + ভাষাজ্ঞান (ব্যবসায় ও অর্থনীতি বিষয়ক বাংলা ও ইংরেজি)
২৪+২৪+২৪=৭২
.
সংগীত, চলা রুকলা, নাট্যকলা ও ফিল্মঃ ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষা = ৫০ (এই ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষার ধরণ সংশ্লিষ্ট বিভাগের ইচ্ছাধীন)
মোট আসনঃ ২৭৬৫
.☆আবেদনের সময়

প্রথম আবেদনঃ ১ আগস্ট থেকে ২০ আগস্ট
২য় আবেদনঃ ২৩ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর

.☆ভর্তিপরীক্ষার তারিখঃ

ইউনিট-৩ঃ ১৪ সেপ্টেম্বর
ইউনিট-২ঃ ২০ সেপ্টেম্বর
ইউনিট-১ঃ ২১ সেপ্টেম্বর
.
সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা ও ফিল্মঃ (ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষা): ২৯ সেপ্টেম্বর

পছন্দের আরো পোস্ট