মোতাহার হোসেন পদক ও বৃত্তি পেলেন যারা

ঢাবি প্রতিনিধিঃ

বিএস সম্মান পরীক্ষায় অসাধারণ ফলাফল অর্জন করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিসংখ্যান বিভাগ এবং পরিসংখ্যান গবেষণা ও শিক্ষণ ইনস্টিটিউটের ৪জন মেধাবী শিক্ষার্থী ‘কাজী মোতাহার হোসেন পদক’ লাভ করেছেন। এছাড়া, ২জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি এবং রচনা প্রতিযোগিতায় ১ম, ২য় ও ৩য় স্থান অধিকারী ৩জন শিক্ষার্থীকে পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান আজ ৩০ জুলাই ২০১৯ মঙ্গলবার টিএসসি মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে পদক, বৃত্তির চেক ও পুরস্কার তুলে দেন। প্রয়াত জাতীয় অধ্যাপক কাজী মোতাহার হোসেনের ১২২তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কাজী মোতাহার হোসেন ফাউন্ডেশন এই অনুষ্ঠান আয়োজন করে।

কাজী মোতাহার হোসেন ফাউন্ডেশনের সিনিয়র সদস্য অধ্যাপক নাজমা হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ‘নজরুল চর্চায় কাজী মোতাহার হোসেন’ শীর্ষক স্মারক বক্তৃতা প্রদান করেন ড. তপন বাগচী। পরিসংখ্যান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান এবং পরিসংখ্যান গবেষণা ও শিক্ষণ ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. ইশরাত রায়হান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। কাজী মোতাহার হোসেন ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রওনক হোসেন অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিসংখ্যান বিভাগের প্রথিতযশা অধ্যাপক কাজী মোতাহার হোসেনের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, দেশের শিক্ষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও গবেষণার উন্নয়ন এবং উন্নত ও সভ্য সমাজ বিনির্মাণে তিনি অনন্য অবদান রেখে গেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বুদ্ধিমুক্তির আন্দোলনেও তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন।

তিনি একাধারে অসাম্প্রদায়িক, মানবিক ও ধর্মীয় মূল্যবোধসম্পন্ন মানুষ ছিলেন। তাঁর আদর্শ অনুসরণ করে শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান মনস্ক ও আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। উপাচার্য বলেন, যে শিক্ষা সমাজ ও মানব সভ্যতার উন্নয়নে কাজে লাগে না, সে শিক্ষা অর্থহীন। প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে উন্নত সমাজ গড়ার কাজে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য তিনি শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।

পদকপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা হলেন- উম্মে নাঈমা ইসলাম (পরিসংখ্যান), তাসনিম ফাতেমা আলম, ইমা ইকতার ও শরিফ হোসাইন (পরিসংখ্যান গবেষণা ও শিক্ষণ ইনস্টিটিউট)। বৃত্তিপ্রাপ্তরা হলেন- বিকাশ পাল (পরিসংখ্যান) ও তাসনীম আরা (পরিসংখ্যান গবেষণা ও শিক্ষণ ইনস্টিটিউট)। রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীরা হলেন- তানজিনা আক্তার, কে এম তানভীর ও প্রিয় সাহা।

পছন্দের আরো পোস্ট