নিভৃতে উড়ে বেড়ায় কালাঘাড় রাজন

ছবি ও লেখা নুরুন্নাহার নাফিসাঃ

কালাঘাড় রাজন। Black-naped Monarch,Scientific Name- Hypothymis azurea,কালাঘাড় রাজন দেখতে অনেকটা আমাদের অতি পরিচিত চড়ুই পাখির মতোই। ব্যবধান এটুকুই যে চড়ুই একটু মোটা। ছোট-বড় বাগান, বাঁশঝাড় এবং বনের নিভৃতে এটি উড়ে বেড়ায়।

পূর্ণবয়স্ক কালাঘাড় রাজনের দেহের দৈর্ঘ্য ১৬ সে:মি: হয়৷ এদের দেহের রঙ মূলত নীল এবং পেটের অংশ হলদেটে দেখা যায়৷ আকার-আকৃতিতে বেশ ছোট, তবে সৌন্দর্যে রাজার মতোই। মাথার ওপরের অংশে রয়েছে মুকুটের মতো উঁচু কালো লোমশ আবরণ।

পাখিটি থাকে মানুষের আশপাশেই বাগান ও বন-জঙ্গলে। অধিকাংশ গ্রামের বাঁশবনেই এদের আপনি পাবেন। কিন্তু ছোট এবং বনের ভেতরে থাকে বলে সে মানুষের নজরের মধ্যে সহজে পড়ে না। আর লোকে তাকে দেখেনি বলে এর নামও দেয়নি।

মাঝেমধ্যে পাখার মতো করে লেজটি ছড়িয়ে দিলে হয়ে ওঠে অপূর্ব। এর আগে এটির কোনো বাংলা বা অঞ্চলভিত্তিক নাম ছিল না। পাখিবিদ ইনাম আল হক এটির নামকরণ করেছেন ‘কালাঘাড় রাজন’।

বরেণ্য পাখি গবেষক, লেখক ও বাংলাদেশ বার্ড ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ইনাম আল হকের মতে,এটি আমাদের দেশের সুলভ আবাসিক পাখি হলেও একে খুবই কম দেখা যায়।

আন্তর্জাতিক প্রকৃতি ও প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ সংঘ (আইইউসিএন) পাখিটিকে ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত হিসেবে তালিকাভুক্ত করেছে।

পাখিটি থাকে মানুষের আশপাশেই বাগান ও বন-জঙ্গলে। অধিকাংশ গ্রামের বাঁশবনেই এদের আপনি পাবেন। কিন্তু ছোট এবং বনের ভেতরে থাকে বলে সে মানুষের নজরের মধ্যে সহজে পড়ে না। পাখিটির দৈর্ঘ্য মাত্র ১৬ সেন্টিমিটার, ওজন ১২ গ্রাম।

পছন্দের আরো পোস্ট