ডিআইইউ ফার্মা ক্যারিয়ার এক্সপো শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ধানমন্ডি ক্যাম্পাসে আজ (২৭ এপ্রিল) থেকে ২ দিনব্যাপী ‘ডিআইইউ ফার্মা ক্যারিয়ার এক্সপো ২০১৯ঃ দশ বছর পূূর্তি’ উৎসব শুরু হয়েছে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ফার্মেসী বিভাগ ২৭-২৮ এপ্রিল ২০১৯ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১ মিলনায়তনে এ ক্যারিয়ার ফেস্টের আয়োজন করে।

বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ ফার্মাসিউটিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের মহাসচিব এস এম শফিউজ্জামান  প্রধান অতিথি হিসেবে এ ফেস্টের উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেনারেল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিেিটডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডাঃ মমিনুল হক।

 বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোঃ সবুর খান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবু উল হক মজুমদার, এলাইড হেলথ সায়েন্সস অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. আহমেদ ইসমাইল মোস্তাফা ও ফার্মেসী বিভাগের প্রধান শরীফ মোঃ শাহীন।

দুই দিনব্যাপী ফার্মা ক্যারিয়ার ফেস্টে রয়েছে বাংলাদেশে ঔষধপণ্য ব্যবস্থাপনা, ঔষধ খাতে পেশাগত নিয়োগ প্রাপ্যতা, সঠিক পেশা নির্বাচন বিষয়ক সেমিনার, কর্মশালা, ক্যারিয়ার বিষয়ক কথামালা ও প্রদর্শনী। দেশের শীর্ষস্থানীয় ১৫ টি ফার্মাসিউটিক্যাল ইন্ডাস্ট্রি এ ক্যারিয়ার ফেস্টে অংশগ্রহণ করছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ফার্মাসিউটিক্যালস ইন্ডাস্ট্রির মহাসচিব এসএম শাফিউজ্জামান বলেন, বাংলাদেশ বেশকিছু ক্ষেত্রে বিস্ময়কর সাফল্য অর্জন করেছে। তারমধ্যে ওষুধ শিল্প অন্যতম। প্রায় ৯৮ শতাংশ ওষুধ এখন দেশেই তৈরি হচ্ছে এবং দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বের ১৬০টি দেশে রপ্তানিও হচ্ছে। এই সাফল্য অর্জন সম্ভব হয়েছে এ দেশের ফার্মাস্টিদের কারণে।

বাংলাদেশের ফার্মেসি সেক্টর খুব দ্রুতই প্রধান অর্থনৈতিক খাতে পরিণত হতে যাচ্ছে উল্লেখ করে এসএম শাফিউজ্জামান আরো বলেন, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের ক্ষেত্রে ফার্মেসি সেক্টর শীর্ষে উঠে এসেছে। এই সেক্টরে প্রচুর কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হয়েছে। ফলে প্রায় সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ফার্মেসি বিভাগ খোলা হয়েছে। কিন্তু বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসির কোর্স কারিকুলাম এখনো সেকেলে রয়ে গেছে।

বর্তমান বাজার চাহিদা অনুযায়ী কোর্স কারিকুলাম পরিবর্তন করা উচিত বলে মন্তব্য করেন এসএম শাফিউজ্জামান। এ ব্যাপাওে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ ফার্মাসিউটিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের (বাপি) পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে বিশ্¦বিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান বলেন, ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগ দশ বছরপূর্তি উদযাপন বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য অত্যন্ত গৌরবের। এই দশ বছরে ফার্মেসি বিভাগ থেকে অনেক শিক্ষার্থী ডিগ্রি নিয়ে বের হয়ে গেছে এবং তারা দেশ-বিদেশে ফার্মেসি সেক্টরে উচ্চপদে চাকরি করছে। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগ দক্ষ ও যোগ্য ফার্মাসিস্ট তৈরি করতে বদ্ধ পরিকর বলে মন্তব্য করেন তিনি।

ড. মো. সবুর খান আরো বলেন, ওষুধ শিল্পে আমাদের গবেষণা আরও বাড়াতে হবে। নতুন নতুন ওষুধ উৎপাদন করতে হবে। এজন্য বাজারচাহিদা উপলব্ধি করে কোর্স কারিকুলাম তৈরি করার আহ্বান জানান তিনি। এসময় ড্যাফোডিল চেয়ারম্যান বলেন, তথ্য প্রযুক্তি ও বিজ্ঞানের সহায়তা নিয়ে শিক্ষার্থীদেরকে আরও বেশি উদ্ভাবনশীল হতে হবে।

পছন্দের আরো পোস্ট