জাবিতে শিক্ষার্থীদের হেলথ্কার্ড প্রদানের পরিকল্পনা

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ হেলথ্কার্ড প্রদানের পরিকল্পনা গ্রহণ করছে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যাল সেন্টার আধুনিকায়ন ও সেবার মান বৃদ্ধির জন্য কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ছাত্রসংগঠনের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ, প্রক্টর সিকদার মো. জুলকারনাইন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান মেডিক্যাল অফিসার ডা. শামছুর রহমান, ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্রফ্রন্ট এবং প্রগতিশীল ছাত্র জোটের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন-১ এর কাউন্সিল কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে মেডিক্যাল সেন্টার উন্নয়নে ছাত্র সংগঠনের নেতৃবৃন্দের দাবির যৌক্তিকতা অনুধাবণ করে কর্তৃপক্ষ জানান, মেডিক্যাল সেন্টারের চিকিৎসক স্বল্পতা দূর করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে নতুন একজন চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন মেডিক্যাল সেন্টার গড়ে তোলার লক্ষ্যে অচিরেই পরিচ্ছন্নতা কর্মী বৃদ্ধি করা হবে। মেডিক্যাল সেন্টারে মানসম্মত প্রয়োজনীয় ঔষধ সরবরাহ করা হবে। ঔষধের ষ্টোর রুমের সংস্কার কাজ শীঘ্রই শুরু হবে। মেডিক্যাল সেন্টারে বর্তমানে ৪টি এ্যাম্বুলেন্স রয়েছে। দ্রুতই আরো ১টি এ্যাম্বুলেন্স প্রদান করা হবে এবং সবগুলো এ্যাম্বুলেন্স সার্বক্ষণিক সচল রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়। এছাড়াও চিকিৎসকদের প্রেসক্রিপশন এবং ঔষধ প্রদানের স্লিপ কম্পিউটারাইজ্ড করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

২০১৪ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর ১ কোটি ৮ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত একতলা বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ মেডিক্যাল সেন্টার উদ্বোধন করা হয়। উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম পূর্ণাঙ্গ এ মেডিক্যাল সেন্টার উদ্বোধন করেন। এরআগে ছোট পরিসরে মেডিক্যাল সেন্টারটি চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছিল। মেডিক্যাল সেন্টারের আধুনিকায়নে গৃহীত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হলে চিকিৎসা সেবার মান আরো বৃদ্ধি পাবে।

পছন্দের আরো পোস্ট