বশেমুরবিপ্রবিতে অারশিনগর অ্যাসোসিয়েশনের নবীন বরণ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) অন্যতম ছাত্র সংগঠন `অারশিনগর (কুষ্টিয়া-মেহেরপুর) অ্যাসোসিয়েশন’- এর নবীন বরণ ও এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার (২৭ জুলাই) বেলা ৫টা থেকে শুরু হয়ে এ অনুষ্ঠান চলে রাত ১১টা অবধি। পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন মোঃ তরিকুল ইসলাম ও রাজীব হোসাইন। অনুষ্ঠানে ফটোগ্রাফার হিসেবে বিশেষ অবদান রাখেন বিএমবি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী জাকারিয়া নাহিদ।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অামন্ত্রণ জানানো হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনকে। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে অামন্ত্রণ জানানো হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অাইন বিভাগের শিক্ষক ড. মোঃ রাজিউর রহমান ও সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মোঃ মজনুর রশিদকে।
অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে `অারশিনগর অ্যাসোসিয়েশন’ সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেন অ্যাসোসিয়েশের জন্মলগ্ন থেকে এর সাথে সম্পৃক্ত বিভিন্ন প্রবীন শিক্ষার্থী। নবীন শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকেও বেশ কয়েকজন তাদের অভিমত প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মোঃ মজনুর রশিদ অ্যাসোসিয়েশনকে সামনের দিকে অারও এগিয়ে নিতে বিভিন্ন গুরুত্ববহ দিক-পরামর্শ প্রদান করেন। তিনি অারশিনগর অ্যাসোসিয়েশনের সকল শিক্ষার্থীকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে বিশেষভাবে অাহ্বান জানান। তিনি তার বক্তব্যে তুলে ধরেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা এবং সময়োপযোগী পদক্ষেপই বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরা ও উল্লেখযোগ্য এ অ্যাসোসিয়েশনকে অারও অনেকদূর এগিয়ে নিতে পারে।
বক্তব্য পর্ব শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া কুষ্টিয়া-মেহেরপুর হতে অাগত প্রথম বর্ষের সকল নবীন শিক্ষার্থীকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। এরপর “দাবানল” কাব্যগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান সহ এক নান্দনিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের অায়োজন করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অারশিনগরের শিক্ষার্থীরা ছাড়াও বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে। নাঁচ, গান, অভিনয় এবং কবিতা অাবৃত্তির মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা তাদের পারফরমেন্স নৈপুণ্যে অনুষ্ঠান মঞ্চ মাতিয়ে রাখে। পরবর্তীতে গান পরিবেশনেরর মধ্য দিয়েই অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানা হয়।
অনুষ্ঠান সম্বন্ধে উক্ত অ্যাসোসিয়েশনের সম্মানিত সভাপতি মোঃ উমর ফারুক বলেন, অামার বিভিন্ন সমস্যাগত কারণবশত অনুষ্ঠানটি করতে বিলম্ব হয়ে গেছে। অামরা বছরের শুরুতেই অনু্ষ্ঠানটি করতে চেয়েছিলাম। তবে ব্যক্তিগত অসু্স্থতা, কোটা সংস্কার অান্দোলন প্রভৃতি কারণে অনুষ্ঠানটি করতে অামাদের বিলম্ব হয়েছে। তবুও পরিশেষে এতো সুন্দর ও সাবলীল একটি অনুষ্ঠান সাফল্যমন্ডিত করার জন্য যারা দিন-রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন `অারশিনগর (কুষ্টিয়া-মেহেরপুর) অ্যসোসিয়েশন’ তাদের কাছে অাজীবন ঋণী ও কৃতজ্ঞ থাকবে।
পছন্দের আরো পোস্ট