কর্মবিরতির ৮ম দিনে দাবী মেনে নিলো কর্তৃপক্ষ

অবশেষে ৬ দফা দাবীতে সাভারের গণস্বাস্থ্য সমাজ ভিত্তিক মেডিকেল কলেজের শিক্ষানবীশ চিকিৎসক ও ট্রেইনি মেডিকেল অফিসারদের আন্দোলনের মুখে পিছু হাঁটলো কর্তৃপক্ষ।

কর্মবিরতির অষ্টম দিনে এসে ভাতা বৃদ্ধি, যথাসময়ে ভাতা পরিশোধ করা, বাধ্যতামূলকভাবে ভাতা হতে থাকা-খাওয়া বাবদ খরচ কর্তন না করে শুধুমাত্র যারা হোস্টেলে থাকবে তারা যেনো আলাদা ভাবে পরিশোধ করতে পারে, সে ব্যবস্থা করা সহ ৬ দফা দাবী মেনে নিয়েছে প্রশাসন। শিক্ষার্থীরা জানান, গতকাল (১০ জুলাই) গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা বিজ্ঞান অনুষদের ডীন ডা. এ.কে খান, মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. ফরিদা আদিব খানম, হাসপাতাল পরিচালক ডা. মিজানুর রহমান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের পক্ষে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্তুজা আলী বাবু উপস্থিত হয়ে জানান যে, ইন্টার্ণদের ভাতা ৮০০০ থেকে বৃদ্ধি করে ১২০০০ টাকা এবং টিএমও দের ভাতা ১৮০০০ হাজার থেকে বৃদ্ধি করে ২০০০০ টাকা করা হয়েছে।

তবে, ৬ মাসের চুক্তির জায়গায় ৫ মাসেই টিএমও শীপ বাতিলের সিদ্ধান্ত জানালে চিকিৎসকরা প্রতিবাদ জানায়। বর্তমানে টিএমও হিসাবে কর্মরত সবার ৬মাস পূর্ণ করতে দেওয়া এবং ৬ মাস শেষে সার্টিফিকেট দেওয়া সহ সকল দাবী মেনে নেওয়ার সিদ্ধান্ত লিখিত আকারে না আসা পর্যন্ত কর্মবিরতি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয় আন্দোলনকারীরা।

আজ (১১ জুলাই) আন্দোলনের অষ্টম দিনের শুরুতেও চিকিৎসকরা কর্মবিরতি পালন করে। অবশেষে দুপুরের পরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে লিখিত ভাবে সকল দাবী মেনে নেওয়ার লিখিত প্রজ্ঞাপন জারি নিশ্চায়তা দিলে, অবসান ঘটে ৮ দিন ধরে চলমান এই অচলাবস্থা। এসময় শিক্ষার্থীরা জানান, হাসপাতালের আসা রোগীদের কথা চিন্তায় রেখে আমরা অনতিবিলম্বে কাজে যোগদান করবো।

এরপরেই হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায়, ১০৪ জন ইন্টার্ণ ও ৩২ জন ট্রেইনি মেডিকেল অফিসারদের অনেকে কাজে ফিরেছেন। বাকিরা রুটিন অনুযায়ী কাজে যোগদান করবেন বলে জানান।

পছন্দের আরো পোস্ট