ইঞ্জিনিয়ারিং এ ক্যারিয়ার গড়তে চান শামিলা শশী

শামিলা শশী। জামালপুরের মেয়ে।বাবা সরকারী চাকুরীজিবী আর মা উদ্দ্যোক্তা। বাবা মা আর একমাত্র ভাইকে নিয়েই সাজানো গোছানো জীবন।বর্তমানে ইউনাইটেড ইউনিভার্সিটিতে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং অধ্যায়নরত।

পড়ালেখার পাশাপাশি আঁকা-আঁকি, পাখি পালন,গাছ লাগানো, স্কাউটিং,সংবাদ উপস্থাপনা করছেন। তাকে নিয়ে আমাদের এবারের ক্যারিয়ার ভাবনা। গ্রন্থনায় স্বর্ণক শাহী।

ক্যারিয়ার ভাবনা

ক্যারিয়ার ভাবনা নিয়ে বলতে গেলে বলতে হয় যেহেতু আমি বর্তমানে একটা বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ছি সেহেতু অবশ্যই প্রোফেশনটাও ইঞ্জিনিয়ার হিসেবেই থাকবে।

শামিলা শশীক্যারিয়ার গড়তে

ভালো ক্যারিয়ার গড়তে অবশ্যই খুব ভালো এবং মনোযোগী শিক্ষার্থী হতে হবে। খুব ভালো একাডেমিক রেজাল্ট থাকতে হবে এবং সারাক্ষণ পড়াশুনার উপর থাকতে হবে। এটা সত্যি অবশ্যই ভালোভাবে পড়ালেখা করতে হবে ,তার মানে এই নয় যে সবসময় পড়ালেখা নিয়ে পড়ার টেবিলে বসে থাকতে হবে।

প্রথমে নিজেকে develop করা উচিত, এজন্য পাঠ্য বই ছাড়াও অন্যান্য কর্মকান্ডের সাথে জড়িত করতে হবে নিজেকে।এজন্য আমি ছোট থেকেই পড়ালেখার পাশাপাশি আঁকা-আঁকি,পাখি পালন,গাছ লাগানো, স্কাউটিং,বিশ্ব-সাহিত্য কেন্দ্রের বই কিংবা ধর্মীয় বই পড়তে ভালোবাসতাম।

এরপর কখনো নাচের অনুষ্ঠান করেছি কিংবা র‌্যাম্প ওয়াক করেছি। হঠাৎ খেয়াল করলাম অনেক মানুষের সামনে চলতে পারি নাচতে পারি কিন্তু কথা বলতে পারি না। কমুনিকেশন স্কিল বাড়াতে শুরু করলাম অনুষ্ঠান এবং সংবাদ উপস্থাপনা।

ভালো গুন

আমি কখনো কাজকে না করি না,শুধুমাত্র জানা কিংবা অভিজ্ঞতার জন্য হলেও কাজ করি। যখন বন্ধুরা আড্ডা দিচ্ছে অথবা hang out plan করছে, তখন আমি আমার Future biography এর cv তে একটা করে experience, একটা করে লাইন increase করার চেষ্টা করছি। তবে অবশ্যই institutional result ধরে রেখে।

শামিলা শশীপ্রিয়

আমার সবচেয়ে প্রিয় আমার আম্মু ।উনি আমার একজন ভালো বন্ধুও বটে।এরপর আব্বু আর আমার ছোট ভাইটি।

কৃতিত্ব

৫ম,৮ম শ্রেণীর বৃত্তি, এস.এস.সি এবং এইচ.এস.সি-তে জিপিএ-৫.ধরে রেখেছিলাম। স্কুল থেকে well behavior এর জন্য award-ও পেয়েছি।তবে কখনও পড়া বাকী রেখে অন্য কাজ করিনি।

যত রাত হোক কিংবা যত কষ্ট হোক পড়া শেষ করে তারপর অন্য কাজ করেছি।  যদিও পড়াশুনা এবং অন্যান্য কর্মকান্ড চালিয়ে যাওয়া কষ্টকর।

কিন্তু সুন্দর ভবিষ্যৎ চাইলে কষ্ট করার কোন বিকল্প নেই।

শামিলা শশীউপদেশ

“Jack Ma” এর একটি উপদেশ ছিলো “বিশ বছরের আগে ভালো শিক্ষার্থী হতে হবে এবং কিছু অভিজ্ঞতা থাকতে হবে,ত্রিশ বছরের আগে ছোট কর্মকান্ডের সাথে জড়িত হয়ে dream, passion এবং learn করতে হবে।

চল্লিশ-পঞ্চাশের মাঝে এমন কাজ করতে হবে যা আমি ভালো পারি এবং পরবর্তী বয়সে Young generation এর জন্য কাজ করতে হবে।”২৫ বছর পর্যন্ত ভূল করা যায় এবং শুধরেও নেওয়া যায় ।

ভবিষ্যৎ

এমন কিছু করতে চাই,যার মাধ্যমে সবার ভালোবাসা ও সম্মান নিতে পারি ।

পছন্দের আরো পোস্ট