শীত বস্ত্র বিতরণে ইয়াং ইঞ্জিনিয়ার্স সোসাইটি

ইয়াং ইঞ্জিনিয়ার্স সোসাইটি (ইয়েস) প্রফেশনাল এর পাশাপাশি বিভিন্ন  সমাজ সেবা মূলক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে । এগুলির মধ্যে রয়েছে স্বেচ্ছায় রক্ত দান কর্মসূচি , প্রোজেক্ট ফেয়ার,তরুণ প্রকৌশলীদের দের জন্য ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা , ফান্ড সংগ্রহ , সামাজিক কার্যক্রম ও আরও অনেক কিছু ।
তীব্র এই শীতে মা তার সন্তানকে উষ্ণতায় জড়িয়ে ধরে ওম দিবে কিংবা স্ত্রী তার স্বামীকে উষ্ণ চাদরে জড়িয়ে কাঁপুনির তীব্রতা বুঝতে দিবে না । যারা ভালো আছে তাদের জন্য শীত মানে নতুন কিছু নয় ঋতুর পরিবর্তন মাত্র কিংবা বিনোদন ও উৎসব পর্ব । কিন্তু বাংলাদেশের যারা ভালো থাকে না তাদের জন্য ঋতুর এই পরিবর্তন শীত হচ্ছে ঠাণ্ডার সাথে যুদ্ধ করা । যাদের কাছে ক্ষুধা নিবারণের জন্য খাদ্য জোগাড় করাই মূল বেঁচে থাকা সেখানে শীত থেকে বাঁচার কোন অস্ত্র তাদের নেই । তাই বাংলাদেশের সেই সব দরিদ্র, নিঃস্ব মানুষগুলো শীতে শারীরিক কষ্ট পায়- যা আমরা দেখি পথে চলতে, টিভির পর্দায় কিংবা পত্রিকায়।নীলফামারী তে এখনো গড় তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।অনেক গরীব ও অসহায় মানুষ শীতে কস্ট করছে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে শীতার্ত অসহায় মানুষদের মাঝে কিছুটা উষ্ণতা ছড়িয়ে দিতে ২৬ শে জানুয়ারী ইয়াং ইঞ্জিনিয়ার্স সোসাইটি (ইয়েস) উদ্যোগে নীলফামারী জেলায় রামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ৬০০ টি কম্বল ও শীত বস্ত্র বিতরণ করা হয়।।“মানবিক দৃষ্টি আকর্ষন : আমরা প্রকৌশলীরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেই  অসহায় , শীতার্ত মানুষের  জন্য”।
ইয়াং ইঞ্জিনিয়ার্স সোসাইটি (ইয়েস) এর স্বপ্নদ্রষ্টা ও চেয়ারম্যান, সাবেক সহ সাধারণ সম্পাদক আই,ই,বি  প্রকৌশলী শেখ আল আমিন,ও ইয়েস এর সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মোহাম্মদ  শাহাবুদ্দিন এর সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে কম্বল বিতরণ বাস্তবায়িত হয়।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে অসহায় , শীতার্ত মানুষের  মাঝে কম্বল বিতরণ করেন ইয়েস এর ভাইস চেয়ারম্যান প্রকৌশলী রেজাউল ইসলাম ও সহ সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী আরিফুর রহমান খান।
আগামীতে অসহায় ,শীতার্ত, মানুষের পাশে দাঁড়ানোর প্রত্যয় নিয়ে শীত বস্ত্র বিতরণ সম্পন্ন হয়।সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন ইয়েস সোশ্যাল কমিটি এর প্রকৌশলী  সামিন আহমেদ ,শিমুল ,জামশেদ ,মুন্নি ,সহ অনেকে  ও ইয়েস এন্ট্রেপ্রেনিউর বাংলাদেশ লিমিটেড।

// স

পছন্দের আরো পোস্ট