এখনি সময় ঘুরে দাঁড়ানোর

জীবনে বড় হতে চায় না এমন লোক খুব কমই আছে। সবাই প্রতিষ্ঠিত হতে চায়। সে জন্য নানা রকমের পন্থা অবলম্বন করে থাকে মানুষ। জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে হলে আমাদের যে সব জিনিসগুলো সবার প্রথমে জানা প্রয়োজন তাহলো, আমি কি চাই, আমি কি পারি, আমার কি করা দরকার। আমরা কম বেশী সব মানুষই চিন্তা করি আমি যা নিয়ে পড়াশোনা করি বা করেছি আমাদের সেই রিলেটেড চাকরিই করতে হবে অন্য কিছু করা যাবে না, কেনো আমাদের এই ধারনা? হয়তো এটার কোন সঠিক উত্তর আমাদের জানা নাই। তবে আমি বলবো আমরা চাইলে করতে পারবো না এমন কাজ খুব কমই আছে। বলতে পারেন আমার সিজিপিএ ভালো না আমি কোন ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারি নাই আমাকে দিয়ে কি হবে? ভাই একটা ভালো রেজাল্ট আর একটা ভালো বিশ্ববিদ্যালয় কখনোই কারো ভাগ্য নির্ধারণ করতে পারে না। একটা কাজ ভালো ভাবে শিখুন যেটা আপনি করতে সবচেয়ে বেশী অনন্দবোধ করেন তার পাশাপাশি আরো অনেকগুলো কাজ শিখতে থাকুন যাতে চাকরি বাজারে চাকরি পেতে আপনাকে বেশী কষ্ট করতে না হয়।  যারা বলে চাকরি নাই বা চাকরি পাই না আসলে তারা চাকরি খুজেই না আর না হলে তারা কিছুই জানে না। নিজেকে এমনভাবে তৈরি করুন যাতে আপনি নিজেই নিজেকে নিয়ে গর্ববোধ করতে পারেন, অন্যরা কি ভাবলো বা বললো সেটা জানার আপনার কোন দরকার নেই। একটা বিষয় সব সময় খেয়াল রাখবেন – হতাশাকে কখনো নিজের মাঝে টেনে আনবেন না,এটা আপনার জীবনের কোন অংশ নয়। হতাশা হলো হতাশাই। জীবন চলার পথে আপনার গন্তব্যে পৌছানোর পথে সমস্যা আসতেই পারে,আপনাকে থমকে দিতে চাইতেই পারে, আপনাকে ঘরে বসিয়ে রাখার জন্য গোপন পরিকল্পনা করতেই পারে কিন্তু আলো যাদের পথ চলার সঙ্গি তাদেরকে কি অন্ধকার গ্রাস করতে পারে? না কখনোই না।

অনেকেই বলতে পারেন অনেক চেষ্টা করেছি একটা কাজে সফল হওয়ার জন্য কিন্তু পারিনি। কেনো আপনি সফল হতে পারেননি জানেন? কারন হচ্ছে কাজটা আপনি মন থেকে করেননি, ভেবে নিলাম আপনি কাজটা মন থেকে করেছেন কিন্তু সফল হতে পারছেন না, এখান থেকেই আবার শুরু করুন নতুন করে,জানার ও বুঝার চেষ্টা করুন আপনার কাজের মধ্যে কোথায় সমস্যা যার কারনে আপনি সফল হতে পারছেন না, সেটা খুজে বের করুন এবং এর সমাধান করুন। আবার কাজ শুরু করুন, আবার ব্যার্থ হলে তার কারন খুজুন সেটার সমাধান করুন সফল না হওয়া পর্যন্ত। এই নিয়মেই আগাতে থাকুন দেখবেন এরপর সমস্যাও আপনার সামনে আসতে লজ্জাবোধ করবে সফলতা তখন নিজে এসে ধরা দিবে আপনার কাছে। আপনি কত তাড়াতাড়ি সফল হবেন তা নিরবর করবে আপনি প্রয়োজনের তুলনায় কতটুকু বেশী কাজ করেছেন।

আপনি একটা কোম্পানীতে কাজ করেন যদি আপনাকে বলতে বলা হয় আপনার বস এর কয়েকটা খারাপ  দিক এর কথা বলতে, আপনি বলতে পারবেন না কারণটা হচ্ছে আপনি আপনার বসকে ভয় পান কেনো পান বলতে পারবেন?পারবেন না। এই ভয় পাওয়ার কারনেই আপনি একটা ভালো আইডিয়া আপনার বস এর সাথে শেয়ার করতে পারছেন না কিন্তু খেয়াল করে দেখুন এমন একজন যে ভয় নামক জিনিসটাকে জয় করেছে, সে আরেকটা আইডিয়া যেটা আপনার থেকে ভালো না সে সেটা বস এর সাথে শেয়ার করে আপনার আগেই প্রমোশন পেয়ে যাচ্ছে।  এখনই সময় ভয়কে জয় করুন ,কিসের এতো ভয় আপনি কাজ করে বেতন নেন ফ্রী তেতো নেন না তাহলে? ঘুরে দাঁড়ান এখনই। সুতরাং এসব ডানাহীন পিছুটান ভূলে নতুন করে শুরু করুন। জীবন একটাই যা করার এখনই করতে হবে। এখনই সময় ঘুরে দাঁড়ানোর।

এমদাদ হোসেন সজীব

সিভিল ইঞ্জিনিয়ার

পছন্দের আরো পোস্ট