সাদার্ন ইউনিভার্সিটিতে পুরকৌশল বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলন

সাদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’র পুরকৌশল বিভাগের উদ্যোগে দুদিনব্যাপী রিসার্চ অ্যান্ড ইনোভেশন ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (আইসিআরআইসিই)’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলন-২০১৮ সম্পন্ন হয়েছে। আজ শনিবার সন্ধ্যায় ইনস্টিটউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইইবি) চট্টগ্রাম কেন্দ্রে সেমিনার রুমে সম্মেলনের সমাপণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খ্যাতিমান পানি বিশেষজ্ঞ ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ইমেরিটাস ড. আইনুন নিশাত

সাদার্ন ইউনিভার্সিটির পুরকৌশল বিভাগের উপদেষ্টা ও চুয়েটের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাপণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাদার্ন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. নুরুল মোস্তফা, সাদার্ন ইউনিভার্সিটির উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর সরওয়ার জাহান ও আইইবি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সেক্রেটারি প্রবীর কুমার সেন। আরও উপস্থিত ছিলেন সাদার্ন ইউনিভার্সিটির বাংলাদেশ’র ভারপ্রাপ্ত উপ-উপাচার্য ও কনফারেন্স সেক্রেটারি অধ্যাপক (প্রকৌশলী) এম আলী আশরাফ, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. শরীফুজ্জামান, চুয়েটের ভিসি অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, বিভিন্ন বিভাগের উপদেষ্টা, বিভাগীয় প্রধানসহ প্রকৌশলীবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খ্যাতিমান পানি বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ইমেরিটাস ড. আইনুন নিশাত বলেন, বিশ্ব এখন টিকে আছে ইনোভেশন নিয়ে। ইনোভেশন খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যা আমাদের দেশকে এগিয়ে নেবে। ইনোভেশন এডাপ করতে পারলেই সে সমাজ হবে টান্সফরমেশন এবং সমাজের সাথে ইনোভেশনকে ধারণ করতে হবে। দেশে পোশাক শিল্প, সেনিটেশান, খাদ্যসহ অনেক ক্ষেত্রে ইনোভেশন হয়েছে। সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো বন্যা ব্যবস্থাপনা, পানি সেচ ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা কারণ এসব কার্যক্রম ভালোভাবে হলে আমাদের খাদ্য সমস্যা থাকবেনা এবং দুর্যোগে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমে যাবে।

তিনি আরও বলেন, যারা জনগণের জন্য কাজ করে তারাই সিভিল ইঞ্জিনিয়ার। সেফটি হচ্ছে সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তাই সিভিল ইঞ্জিনিয়ারদের প্রফেশনাল কোড মেনেই কাজ করতে হবে। কোনোভাবে নিমার্ণ ব্যয় কমিয়ে ঝুঁিকপূর্ণ স্থাপনা তৈরি করা যাবে না। ইঞ্জিনিয়ারিং এ নতুন নতুন বিষয় সৃষ্টি হচ্ছে অর্থাৎ সমাজের চাহিদা অনুযায়ী ইঞ্জিনিয়ারদের আলাদা আলাদা ক্ষেত্র তৈরি হচ্ছে।

দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে তিনটি কি-নোট সেশন ও সাতটি টেকনিক্যাল সেশন ছিল। আজ শনিবার সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে কি-নোট স্পিকার ছিলেন আমেরিকার শিকাগো স্টেট ইউনিভার্সিটির অ্যাসোসিয়েট ডিন প্রফেসর ড. আলী নেওয়াজ ও গাজীপুরের ইসলামিক ইউনিভার্সিটির অব টেকনোলজি’র প্রফেসর ড. হোসেন মোহাম্মদ শাহিন। প্রফেসর ড. হোসেন মোহাম্মদ শাহীন কর্ণফুলী টানেলের ডিজাইন এবং নির্মাণ বিষয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন কর্ণফুলী টানেল হলে দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাথে শহরের ব্যবধান আর থাকবেনা এবং টানেলের উভয় পাশে উন্নয়ন বিপ্লব শুরু হবে।

সম্মেলনে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন গবেষকদের স্ট্র্যাকচারাল, আর্থকোয়েক, জিওটেকনিক্যাল অ্যান্ড ফাউন্ডেশন, ট্রাফিক অ্যান্ড ট্রান্সপোর্টেশন, ওয়াটার রিসোর্সেস, ফ্লাড কনট্রোল অ্যান্ড মিটিগেশন, এনভায়রনমেন্টাল, মেটোরিয়ালস ইঞ্জিনিয়ারিং, কনস্ট্রাকশন অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট, আরবানাইজেশন অ্যান্ড বিল্ড এনভারনমেন্ট, অ্যাডভান্সেস ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এডুকেশন ইত্যাদি বিষয়ে ৪৪টি গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন ও আলোচনা করা হয়।

পছন্দের আরো পোস্ট