নারী উদ্যোক্তাদের অনন্য দৃষ্টান্ত সেলিমা আহমাদ মেরী

কুমিল্লার হোমনা উপজেলার আছাদপুর ইউনিয়ন পাথালিয়া কান্দী গ্রামের কৃতি সন্তান আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সম্মানজনক ‘অসলো বিজনেস ফর পিস অ্যাওয়ার্ড ২০১৪ পেয়েছেন তিনি। নিটল-নিলয় গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা আহমাদ এশীয় মুসলিম নারীদের মধ্যে প্রথম, যিনি এ পুরস্কার পেলেন।

তিনি বাংলাদেশ উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট। এবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের দেয়া কর বাহাদুর পরিবার সম্মাননা পেয়েছে তার পরিবার। স্বামী আবদুল মাতলুব আহমাদ। নিটল-নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান ও ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি।

সেলিমা আহমাদ ব্যবসায়ে যেমন সফল তেমনিভাবে পারিবারিক জীবনেও সফল। এবার তিনি রাজনীতিতে আসছেন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি কুমিল্লা-২ (হোমনা ও তিতাস) আসন থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী। তিনি কুমিল্লা-২ আসনের জন্য নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

এরপরও আমাকে দেশে-বিদেশে বিভিন্ন ওয়ার্কশপে যেতে হয়। মাসে কমপক্ষে ৪ বার বিদেশে যেতে হয় বিভিন্ন সভা-সেমিনারে। উদ্যোক্তা উন্নয়নে কাজ করার জন্য। এগুলো ম্যানেজ করে নিতে হয়। আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী সেলিমা আহমাদ মেরী বলেন, যেমন নারীরা যখন নদীতে গোসল করে এরপর নদীর পারেই কাপড় পাল্টায়। তাদের জন্য কাপড় পরিবর্তনের কোনো ঘর নেই সেখানে। এটা একজন নারীর জন্য অত্যন্ত অস্বস্তিকর। তো এমন অনেক ছোট জিনিস আছে আমি দেখি। আমি চিন্তা করি এই জায়গায় আমি থাকলে তো আমার খুবই কষ্ট হতো। সে জন্যই আমি ওখানে কাজ করতে চাই। এমন অনেক কিছু আছে যেটা নারীদের সমস্যা। অনেক বৃদ্ধ আছে যাদের চিকিৎসার অভাব আছে। শিশুদের জন্য শিশু পার্ক করা, তাদের জন্য মানসম্পন্ন স্কুল করা। রাস্তাঘাট অবকাঠামো উন্নয়নের ব্যাপার তো আছে, এগুলো তো করতেই হবে।

পছন্দের আরো পোস্ট