জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষ সিনেট অধিবেশন

আজ (২৩ ডিসেম্বর) শনিবার গাজীপুর ক্যাম্পাসের সিনেট হলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ সিনেট অধিবেশন ২০১৭ ভাইস-চ্যান্সেলর ও সিনেট চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।উপাচার্য তাঁর অভিভাষণে গত জুন মাসে অনুষ্ঠিত বার্ষিক সিনেট অধিবেশনের পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত ৬ মাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ক্ষেত্রে গৃহীত পদক্ষেপ ও উন্নয়ন কর্মসূচি তুলে ধরেন।

তিনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার রজতজয়ন্তী পালন, ২০১৬ সালের কলেজ পারফরমেন্স র‌্যাংকিং এর ফল ঘোষণা, কলেজ শিক্ষকদের বিশেষ প্রশিক্ষণ (CEDP)-এর অগ্রগতি, গাজীপুর ক্যাম্পাসে মাস্টার প্লান অনুযায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসন সুবিধা, প্রশিক্ষণার্থী কলেজ শিক্ষকদের জন্য অত্যাধুনিক আবাসন ব্যবস্থা, আইসিটির সর্বোচ্চ ব্যবহার, তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহারসহ আধুনিক ব্যবস্থাধীনে সিনেট অধিবেশন অনুষ্ঠান ইত্যাদি লক্ষ্যে একাধিক ভবন নির্মাণের উদ্যোগ ও এর অগ্রগতি, একনেকে ১১৯ কোটি ৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রাথমিক পর্যায়ে বরিশাল, রংপুর ও চট্টগ্রামে ৩টি স্থায়ী আঞ্চলিক কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদন ইত্যাদি তুলে ধরেন।

তিনি ঘোষণা করেন যে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য টেকস্ট বই রচনা ও প্রাথমিক পর্যায়ে নির্বাচিত কিছুসংখ্যক বেসরকারি কলেজকে প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করে মডেল কলেজে উন্নীত করার প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে এবং এর বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে। শিক্ষার মানোন্নয়নে অগ্রাধিকার ও সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপের কথা উল্লেখ করে উপাচার্য বলেন, “শিক্ষার রাজনীতিকরণ ও বাণিজ্যিকীকরণ বন্ধ এবং শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে পেশাদারিত্ব সৃষ্টি না করা গেলে শিক্ষার মানোন্নয়ন সম্ভব নয়।”

অধিবেশনে উপাচার্যের অভিভাষণের ওপর আলোকপাত করে অন্যান্যের মধ্যে মাননীয় সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভূ, ড. আব্দুর রাজ্জাক ও জনাব মোতাহার হোসেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য প্রফেসর ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু, প্রফেসর ড. মশিউর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর মো. নোমান উর রশীদ, প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন (উপাচার্য, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়), অধ্যাপক ড. এম ওয়াহিদুজ্জামান (উপাচার্য, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়), রামেন্দু মজুমদার, অধ্যক্ষ কাজী ফারুখ আহমেদ, অধ্যাপক ড. এস. এম. ওয়াহিদুজ্জামান (মহাপরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর), মহিউদ্দিন খান (অতিরিক্ত শিক্ষা সচিব), লোকমান হোসেন মিয়া (বিভাগীয় কমিশনার খুলনা), অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান (চেয়ারম্যান ঢাকা শিক্ষা বোর্ড), অধ্যক্ষ সৈয়দা নিলুফার ফেরদৌস (রাজশাহী মহিলা কলেজ), অধ্যাপক কানিজ উম্মে নাজমা নাসরীন (রংপুর সরকারী কলেজ) বক্তব্য রাখেন।

তাঁরা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মানোন্নয়নে বিভিন্ন সুপারিশ তুলে ধরেন। অধিবেশনে মোট ৪৮ জন সিনেট সদস্য উপস্থিত ছিলেন। সিনেটে বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরী সংবিধির কতিপয় ধারায় সংশোধনী প্রস্তাব অনুমোদিত হয়।

পছন্দের আরো পোস্ট