জাবিতে নবীন বরণ ও পুরস্কার বিতরণী

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হলের নবীন বরণ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার বলেছেন, বাংলাদেশ সরকারের চলমান অগ্রযাত্রায় নবীন শিক্ষার্থীদের সারথী হতে হবে। দেশকে এগিয়ে নেয়ার স্বপ্ন দেখতে হবে। তিনি নবীন ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আদর্শবান ব্যক্তি ও ব্যক্তিত্বকে অনুসরণ করতে হবে। বঙ্গমাতা ছাত্রীদের জন্য অনুকরণীয় হতে পারেন।

মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা বহুমুখী গুণের অধিকারী ছিলেন। তিনি সংসার দেখভালের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের খোঁজ-খবর রেখেছেন। বঙ্গবন্ধুকে প্রেরণা দিয়েছেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীগণ বঙ্গমাতাকে আদর্শ হিসেবে ধারণ করে নিজেদের সমৃদ্ধ করতে পারে।

বিশেষ অতিথির ভাষণে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বলেন, বঙ্গমাতা দুর্লভ ভাগ্য নিয়ে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। বঙ্গমাতাকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু হত্যার শোক সইতে হয়নি। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে তাকেও শাহাদাত বরণ করতে হয়েছে।

হলের নবীন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে উপাচার্য বলেন, সকলকে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার জন্য যোগ্য সন্তান হতে হবে। যোগ্যতা প্রমাণ করতে হবে মানবতার মধ্যদিয়ে। হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. তপন কুমার সাহার সভাপতিত্বে গতকাল সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক, ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান।

অনুষ্ঠানে অভ্যন্তরীন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। পুরস্কার বিতরণী পর্ব শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়।

পছন্দের আরো পোস্ট