ঢাবি সাংবাদিক সমিতির বার্ষিক সেমিনার ও দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেছেন, ‘গণতন্ত্রের সূতিকাগার হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এটি হচ্ছে গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান। আমরা এই গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান সচল রাখতে চাই। আমরা ডাকসু নির্বাচন করব ইনশাল্লাহ।’ গতকাল (১৩ ডিসেম্বর ২০১৭) বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে ঢাবি সাংবাদিক সমিতি (ডুজা) আয়োজিত ‘গণমাধ্যম বনাম সামাজিক মাধ্যম’ শীর্ষক বার্ষিক সেমিনার ও দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপাচার্য এসব কথা বলেন।

উপাচার্য আরও বলেন, ‘ডাকসু নির্বাচন না হওয়ার পেছনে কোনো সুনির্দিষ্ট যুক্তি ছিল বলে মনে করি। বাস্তবতা হলো, আমরা ডাকসু নির্বাচন চাই এবং গত ২৭ বছর ধরে ডাকসু নির্বাচন হয়নি। প্রত্যাশা করি ডাকসু নির্বাচন হবে। তিনি সাংবাদিক সমিতির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করে বলেন, ঢাবি গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছে। আর এর অন্যতম একটি প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি। এটি গণতন্ত্রের সব কর্মকা- অনুসরণ করে পরিচালিত হয়।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, ‘পরিবর্তনের জন্য তথ্যের কোনো বিকল্প নেই। আর এ পরিবর্তন হতে হবে জ্ঞান বৃদ্ধির পরিবর্তন। এর মাধ্যমে আমরা যেন সমাজকে পরিবর্তন করতে চাই, সেই লক্ষ্য রাখতে হবে।’

ঢাবি সাংবাদিক সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি আসিফুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান নয়ন। অনুষ্ঠানের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. রোবায়েত ফেরদৌস।

পছন্দের আরো পোস্ট