রূঢ়তা

বৈশাখের রৌদ্দ্রে মাটি পুড়েছে
প্রিয়ার চোখের জল অক্ষত
অঝোরে ঝরেছে,
বইয়ের পাতা ভিজেছে কেউ দেখেনি।
ধরণীর সবুজ পুড়ে হলুদ হয়েছে
রৌদ্দ্রের আবেগহীন অত্যাচারে
সবাই দেখেছে,
কতো প্রার্থনা হয়েছে মসজিদ-মন্দিরে।
চোখের জল মানেনি বৈশাখের রোদ
বিরূপ প্রকৃতির নিষ্ঠুর হিংস্রতা
ডায়েরীতে লেখা ভালোবাসি
প্রিয়ার চোখের জলে সাঁতার কেটেছে।
ওই চক্ষুদ্বয়ে কাজল ছিলো
নিষ্পাপ মনের শতো আবেগে
সাগরে মিশলো,
সন্ধ্যার অন্ধকার দেখেছে কেউ দেখেনি।
রংহীন ঠোটের সুগন্ধ ছিলো
প্রিয়ার বেঁচে থাকার স্বপ্ন ছিলো
আমাকে নিয়ে নির্লোভে।
আজ আমিও নিরুপায় বৈশাখের রৌদ্দ্রের মতো
ভুলে যেতে বলেছি
আমি তো সবুজ বনানী নই, মরুলতার জালি
যে আবেগ বোঝে না
চোখের জল বুঝবে কী করে!

///স

পছন্দের আরো পোস্ট