হাবিপ্রবি গার্ডদের মানবেতর জীবন কথা

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন ভবনের এবং মেইন গেটে পাহারার দায়িত্বে আছেন প্রায় ৪২ জন আনসার সদস্য বা গার্ড। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মচারীদের উন্নয়ন হলেও উন্নয়ন হয়নি তাদের ভাগ্যের। কথা হয়েছিলো হাবিপ্রবির দ্বিতীয় গেটে রাত্রি পাহারারত তিনজন আনসার সদস্যের সাথে। গভীর আক্ষেপ নিয়ে একে একে বর্ণনা করছিলেন তাদের অবক্ত কষ্টসিক্ত কথাগুলো।
প্রতিটি আনসার সদস্য প্রতিদিন ৮ ঘন্টা ডিউটি করে থাকেন। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জরুরী অবস্থায় প্রায় সারাদিন ডিউটি করতে হয়। কখনওবা নির্দিষ্ট সময় ছাড়াও গভীররাত অবধি থাকতে হয় পাহারার কাজে। অতিরিক্ত এই কাজের জন্য নেই কোনো অতিরিক্ত ভাতা বা সুবিধা। তীব্র শীতের মধ্যে রাতে ডিউটি করার জন্য নেই কোন গার্ডরুম।
তিনজনের মধ্যে সবচেয়ে সিনিয়র গার্ড একটা শ্বাস নিয়ে বলতে শুরু করলেন তাদের আবাসস্থল নিয়ে কষ্টের কথা। হাবিপ্রবির সব কর্মচারীদের জন্য সুন্দর আবাসিক ব্যবস্থা থাকলেও তাদের রাত্রি যাপনের ব্যবস্থা হয়েছে দীর্ঘদিনের জীর্ণশীর্ণ একটা মসজিদে। সেখানে নেই কোন আধুনিক সুবিধা।
বর্ষাকালে সেই মসজিদ ঘরে অত্যন্ত মানবেতর জীবনযাপন করতে হয় তাদের। একটু বৃষ্টিতেই এক হাঁটু পানি ওঠে সেই ঘরে। অনেক আনসার সদস্যকে অস্থায়ীভাবে ৩ বছরের জন্য নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তাদের প্রাণের দাবি এবং প্রত্যাশা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের এই অস্থায়ী চাকুরীকে স্থায়ী করণের ব্যবস্থা করবেন।
এতকিছুর পরেও তাদের মুখে  দেখতে পেয়েছিলাম সন্তুষ্টির হাসি। সন্তুষ্টির কারন জানতে চাইলে তারা বলেন, মাসের শুরুতেই নির্দিষ্ট সময়েই বেতন পান তারা। প্রশাসনের দেয়া নির্ধারিত বেতনে সন্তুষ্ট সবাই।
পছন্দের আরো পোস্ট